জানুয়ারি ৭, ২০১৬
Home » ব্রেকিং নিউজ » রাজনগরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারী খুন আটক-১

রাজনগরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারী খুন আটক-১

এইবেলা, রাজনগর ০৭ জানুয়ারি ::: মৌলভীবাজারের রাজনগরে পাঁচগাঁও বুধবার (০৬ জানুয়ারি) রাতে আলেকজান বিবি (৫০) নামক এক নারী খুন হয়েছেন। রাজনগর থানার পুলিশ বুধবার রাতে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে মৌলভীবাজার মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ দুলাল মিয়াকে (২৮) কে আটক করেছে।
মামলার বাদী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের সরকারবাজারের পাশে পাঁচগাঁও মোহাম্মদিয়া ছিদ্দিকীয়া জালালিয়া দাখিল মাদরাসার পেছনে একটি পুকুর খনন করে সামনের মাঠ ভরাট করা হয়। বুধবার বিকালে মাদরাসার সুপার পাচগাঁও গ্রামের মাওলানা আব্দুল মান্নান ও সভাপতি শারমপুর গ্রামের বশির মিয়ারসহ কমিটির কয়েকজন সদস্যের উপস্থিতিতে মাটিকাটার হিসাব শেষে ঠিকাদারের পাওনা দাঁড়ায় ৯৫ হাজার টাকা। বুধবারের আগ পর্যন্ত ৫২ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছিল। বুধবার ঠিকাদারকে ২০ হাজার টাকা দিয়ে বাকি টাকা পরে দেয়ার কথা হয়। এসময় ঠিকাদার ২৫ হাজার টাকা চান। সভাপতি বশির মিয়া সুপার আব্দুল মান্নানকে ২৫ হাজার টাকা দেয়ার কথা বলেন। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। পাশের বাজারের লোকজন উভয়কে শান্ত করে সরিয়ে দেন। পরে ঠিকাদার এতবার মিয়া মাদরাসার আরও দুই শিক্ষকসহ সুপারের বাড়িতে টাকা আনতে যান। এদিকে সভাপতি বশির মিয়ার লোকজন খবর পেয়ে সন্ধ্যার আগ মূহুর্তে (৫টার সময়) সুপার আব্দুল হান্নানের বাড়ির দিকে এগিয়ে যান।
সুপার আব্দুল হান্নানের ভাই আব্দুর রহিম মুন্না জানান, বশির মিয়ার লোকজন দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়। আমার ভাইয়ের (আব্দুল হান্নান) উপর ধারালো দা দিয়ে আঘাত করলে আমার খালা আলেকজান বিবি (৫০) তাকে বাঁচানোর জন্য সামনে এগিয়ে যান। এসময় প্রতিপক্ষের লোকজনের দা’য়ের কুপ দিলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন আলেকজান বিবি।
সভাপতি বশির মিয়ার ছেলে জুবেল মিয়া বলেন, উনার সঙ্গে আমাদের ঝগড়া হয়েছে ঠিক। কিন্তু আমরা তার বাড়িতে গিয়ে ওই নারীকে খুন করিনি। তারা আমাদের ওপর দোষ চাপাচ্ছে। উল্লেখ্য যে, নিহত নিঃস্বন্তান আলেকজান বিবি প্রায় ২৫ বছর আগে স্বামী জামুর মিয়া মৃত্যুর পর বাবার বাড়ি বসবাস করছিলেন।
ঘটনার খবর পেয়ে রাজনগর থানার পুলিশ বুধবার (৬ জানুয়ারি) রাতে লাশ উদ্ধার করে মৌলভীবাজার হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় সুপার আব্দুল হান্নান বাদী হয়ে ১০ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জনকে আসামী করে রাজনগর থানায় হত্যা মামলা (নং-৩, তাং ৬-১-১৬) করেছেন। পুলিশ রাতেই অজ্ঞাত তালিকার আসামী শ্রীভোগ গ্রামের বারিক মিয়ার ছেলে দুলাল মিয়াকে (২৮) আটক করেছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রাজনগর থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) উত্তম কুমার দাস জানান, বিভিন্ন দিক মাথায় রেখে মামলার তদন্ত চলছে। অজ্ঞাত তালিকার এক আসামী আটক করা হয়েছে। বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। #

রিপোর্ট- বিশেষ প্রতিনিধি