- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্লাইডার

কমলগঞ্জে চা শ্রমিকদের একদিনের মজুরি কেটে নেয়ার অভিযোগ

ইউনিয়ন নেতাদের জন্য সাপ্তাহিক হাজরি থেকে

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ১৩ মার্চ:: চা শিল্পে কর্মরত শ্রমিকদের সাপ্তাহিক হাজরি থেকে ইউনিয়ন নেতাদের জন্য একদিনের মাথাপিছু ৮৫ টাকা হারে মজুরি কেটে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ডানকান ব্রাদার্স পরিচালিত চাতলাপুর চা বাগানের শ্রমিকরা বর্ধিত মজুরি প্রাপ্তির ২য় সপ্তাহে ২ মার্চ এই টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে বলে ১৩ মার্চ রোববার বাগান ব্যবস্থাপকের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন।

চা শ্রমিকরা জানান, সম্প্রতি চা বাগান মালিক পক্ষ চা শ্রমিকদের সাথে সম্পাদিত চুক্তি মোতাবেক দৈনিক মজুরি ৬৯ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৮৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্ধারিত দৈনিক ৮৫ টাকা হারে এ পর্যন্ত গত তিন সপ্তাহে মজুরি প্রদান করার কথা। কিন্তু বর্ধিত মজুরি অনুযায়ী ১ম সপ্তাহ দৈনিক মজুরি ৮৫ টাকা হারে সপ্তাহে জনপ্রতি মোট ৫৯৫ টাকা প্রদান করা হয়। ২য় সপ্তাহ অর্থাৎ ২ মার্চ তারিখে ৫৯৫ টাকার স্থলে একদিনের মজুরি ৮৫ টাকা কর্তন করে মোট ৫১০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। একদিনের মজুরির টাকা কর্তন বিষয়ে প্রতিবাদ জানালে চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এই টাকা কর্তন করেছেন বলে চা শ্রমিকদেরকে অবহিত করা হয়।

চা শ্রমিকরা অভিযোগ করে বলেন, কোনরূপ আলোচনা, সিদ্ধান্ত ও লিখিত কারণ ছাড়াই আমরা নিরীহ সাধারণ শ্রমিকদের ঘাম ঝরা পরিশ্রমের একদিনের মজুরি ৮৫ টাকা হারে সম্পুর্ণ অবৈধ ও অগনতান্ত্রিক উপায়ে কেটে নেয়া হয়েছে। শ্রমিকদের সাপ্তাহিক হাজরি হতে অবৈধভাবে কেটে নেওয়া একদিনের মজুরি আগামী সপ্তাহে হাজরির সাথে ফেরত প্রদান এবং এ ধরণের আইন বহির্ভূত কার্যক্রমের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে বাগানের ৩২ জন শ্রমিকের স্বাক্ষর সম্বলিত চা বাগান ব্যবস্থাপক বরাবরে দরখাস্থ প্রেরণ করা হয়। এর অনুলিপি শ্রম মন্ত্রণালয় সচিব, সিলেট বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন স্থানে প্রেরন করা হয়।

অভিযোগ বিষয়ে জানতে চেয়ে চাতলাপুর চা বাগান ব্যবস্থাপক ইফতেখান এনামের মোবাইল নাম্বারে (০১৭১১-৯২২৮১৩) কয়েক দফা ফোন করেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। চা শ্রমিক ইউনিয়নের মনু-ধলই ভ্যালীর সাধারন সম্পাদক নির্মল দাস পাইনকা ও চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরীর মোবাইল ফোনে কয়েক দফা ফোন করেও কথা বলা যায়নি।

এ ব্যাপারে কলকারখানা প্রতিষ্ঠান সমুহের শ্রীমঙ্গলস্থ অধিদপ্তরের উপমহা পরিদর্শক আজিজুর রহমান বলেন, এভাবে টাকা কেটে রাখা অবৈধ। অভিযোগ হাতে পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।

 রিপোর্ট-প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *