- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়

কুলাউড়ার কর্মধা ইউনিয়নে কয়েকটি গ্রাম গ্রেফতার আতঙ্কে এখন পুরুষশূণ্য

নির্বাচনী সহিংসতায় ৭ শ জনের বিরুদ্ধে মামলা-

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৯ মে :: কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের ৪র্থ দফা নির্বাচনের দিনরাতে রাঙ্গিছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের বাইরে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জুড়ী থানার ওসি ও ২ কনেস্টেবলসহ ১৫ জন আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুস সহিদ বাবুলকে প্রধান আসামী করে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে ৭ শ জনের বিরুদ্ধে থানায় পুলিশ অ্যাসল্ট মামলা করেন। এর পর থেকেই ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষশূণ্য রয়েছে।

কুলাউড়া থানা ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, ৭মে সারাদেশে ৪র্থ দফা ও কুলাউড়ার শেষ দফা ইউপি নির্বাচনে কর্মধা ইউনিয়নের রাঙ্গিছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। সন্ধ্যায় প্রিসাইডিং অফিসার নির্বাচনের ব্যালট বাক্সসহ সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্র থেকে উপজেলা নির্বাচন অফিসের আসার সময় রাঙ্গিছড়া বাজার এলাকায় প্রিসাইডিং অফিসারকে ঘেরাও করে ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাবুল ও তার সমর্থকরা। এসময় পুলিশ-জনতার মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা ঘটে। এতে জুড়ী থানার ওসিসহ ৩ পুলিশ সদস্য এবং জনতা মিলে উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হন।

এঘটনায় ওই দিন রাতেই কুলাউড়া থানার এসআই আবুল বাশার বাদী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুস সহিদ বাবুলকে প্রধান আসামী করে ৭শ অজ্ঞাত আসামীর বিরুদ্ধে কুলাউড়া থানায় মামলা রুজু করেন। এরপর থেকেই গ্রেফতার আতঙ্কে কর্মধার  নলডরী, হোসনাবাদ, মহিষমারা, কর্মধা, ফটিগুলী, বাবনিয়া, হাশিমপুর, রাঙ্গিছড়া, কালিটি মনসুরপুর, বুধপাশা, টাট্টিউলীসহ গ্রাম পুরুষশূণ্য রয়েছে। রাত নামলেই আসামীদের গ্রেফতার করতে বাড়ীে বাড়ী হানা দিচ্ছে পুলিশ। আবার অনেকে পুলিশের সাথে আতাত করে পূর্ব শক্রতার জের ধরে বিভিন্ন জনের বাড়ীতে পুলিশ পাঠিয়ে হয়রানি করছেন।

এদিকে গত রোববার বিকেলে রাঙ্গিছড়া বাজারে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ঘটনার নিন্দা এবং প্রকৃত দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন কর্মধা ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এমএ রহমান আতিক।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নুর হোসেন জানান, এ ঘটনায় ফাহাদ (২০) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। বাকিদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।#

রিপোর্ট- বিশেষ প্রতিনিধি

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *