- ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

কমলগঞ্জে ঈদ বাজারে শেষ মুহুর্তে উপচে পড়া ভীড়

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ৩০ জুন ::  ঈদকে সামনে রেখে সারা দেশের মত মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ বাজারের সবগুলো বিপনী বিতান ও গলির কাপড়ের দোকানে ক্রেতাদের উপছে পড়া ভীড়। সবগুলো বিপনী বিতানে ভারতীয় টিভির ধারাবাহিকের নামের কাপড়ের চাহিদা বেশী। এই চাহিদার  মেয়েদের প্রথম  পছন্দের তালিকায় রয়েছে বাজিরাও মাস্তানি, বজরঙ্গি, দিলওয়ালি, সাহারা-৩ নামের পোশাক। এসব কাপড় দেশের তৈরী হলেও ভারতীয় টিভির বিভিন্ন সিরিয়ালের নক্সায় ও নামে করায় তরুনীদের কাছে বেশী পছন্দ হিসাবে বিক্রয়ও হচ্ছে বেশী। কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর, ভানুগাছ, আদমপুর ও মুন্সীবাজারসহ বিভিন্ন বাজারের বিপনী বিতান ঘুরে এ চিত্র পাওয়া যায়।

Pic---Eid Kenakata---02
শমশেরনগর বাজারের রহিম ম্যানশন, এ আর কমপ্লেক্স, রয়েল প্লাজা, সুবল ট্রেড সেন্টার, হোসেন প্লাজা, কে এম রহমান মার্কেট, সাদেক মার্কেট, আল মদিনা মার্কেটের বিভিন্ন কাপড়ের দোকানসহ স্থানীয় অন্যান্য কাপড়ের দোকানগুলো ও ভানুগাছ বাজারের আল আমিন প্লাজা, হাজী তোরাব আলী মার্কেট,আফতাব ম্যানশন ও রোস্ম সুপার মার্কেট ঘুরে দেখা যায় মা, মেয়ে ও ছোট ছেলেদের উপচে পড়া ভীড়। সবাই পছন্দের কাপড় কিনতে ব্যস্ত। দোকানীদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, ঢাকা.নরসিংদিসহ বিভিন্ন হাট থেকে ভারতীয় টিভি সিরিয়ালের নামকরণ করে সরবরাহ করলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কাপড় ব্যবসায়ীরা তা কিনে নিতে হচ্ছে। এসব কাপড়ের সর্বনিম্ন মূল্য দুই হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ আট হাজার টাকা পর্যন্ত। ছোট মেয়েদের বেলায়ও একই নামের ছোট আকারের জামার চাহিদা বেশী। আর এগুলোর মূল্য এক হাজার পাঁচ শত টাকা থেকে চার হাজার টাকা পর্যন্ত।

Exif_JPEG_420
ছোট ছেলেদের পছন্দের মাঝে রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনের পাঞ্জাবি, টি শার্ট ও ডাইস জিন্স। পরিবারের বড় ছেলেদের ও কর্তা ব্যক্তিদের পছন্দের মাঝে রয়েছে ডিজাইন করা পাঞ্জাবি। নারীদের (মহিলাদের) বেলায় শাড়ির মাঝে কিরণ নেট, জর্জেট জামদানী, হাফ সিল্ক। এ্ শাড়ির সর্ব নিম্নদাম এক হাজার দুই শত টাকা থেকে সর্বোচ্চ সাত হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে কমলগঞ্জে এবার ঈদের চাহিদার মাঝে যুক্ত হয়েছে নানান নক্সার মণিপুরী তাঁতের শাড়ি। স্বল্প আয়ী মানুষদের ভিড় লক্ষ করা গলির কাপড়ের দোকানে। সেখান দাম দর করে পছন্দের জামা কাপড় কিনছেন ক্রেতারা।

ঈদে নতুন জামার সাথে সাথে সবার দ্বিতীয় চাহিদা হচ্ছে নতুন জুতা ও প্রসাদন সামগ্রীর। আর তাই কমলগঞ্জে ঈদ বাজারে জুতারও  প্রসাদন সামগ্রীর দোকানগুলোতেও রয়েছে উপছে পড়া ভীড়। এসব দোকানগুলো রাত ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকতে দেখা যায়। কাপড়ের দোকানা বৈশাখী ফ্যাশনের মালিক ফটিকুল ইসলাম, শুভেচ্ছ ক্লথ স্টোরের মালিক প্রেমানন্দ দেবনাথ ও মা মনি ফ্যাশন হাউসের মালিক তারেকুর রহমান জানান, ঈদের বাজারে তাদের ব্যবসা ভাল হচ্ছে। একন শেষ বেলার কেনা কাটায় দোকানগুলোতে ভিড় বলে দোকানীরা জানান।#

রিপোর্ট- প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *