আগস্ট ১৬, ২০১৬
Home » জাতীয় » কমলগঞ্জে ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধের ২০টি স্থান ঝুঁকিপূর্ন: তলিয়ে গেছে ৬০ হেক্টরের ফসল

কমলগঞ্জে ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধের ২০টি স্থান ঝুঁকিপূর্ন: তলিয়ে গেছে ৬০ হেক্টরের ফসল

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ১৬ আগস্ট:: টানা ভারী বর্ষণে ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ধলাই ও লাঘাটা নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পৌর এলাকাসহ ধলাই প্রতিরক্ষা বাঁধের কমপক্ষে ২০টি স্থান রয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ। পাহাড়ি ঢলে ও বিভিন্ন ছড়ার পানিতে উপজেলার কমলগঞ্জ পৌরসভাসহ কয়েকটি ইউনিয়নের ৬০ হেক্টর জমির আমন ফসল তলিয়ে গেছে।

কমলগঞ্জ পৌরসভা এলাকা ঘুরে দেখা যায়, গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষনে ও উজানে ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে অস্বাভাবিকভাবে পানি বেড়ে ধলাই নদীতে বিপদ সীমার বেশ উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। খবর পেয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড মৌলভীবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী ফয়জুর রব, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ ও উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ জানান, খর¯্রােতা ধলাই নদীর পানির আঘাতে প্রতিরক্ষা বাঁধের একাংশ ভেঙ্গে পৌরসভা এলাকার গোপাল নগর, করিমপুর, আলেপুর, দক্ষিণ কুমড়া কাপন, উত্তর কুমড়া কাপন ও রামপাশা এলাকায় ঝুঁকিপূর্ন রয়েছে। নদীর পানি আরও বাড়লে এসব স্থানে ভাঙ্গন সৃস্টি হয়ে আকস্মিক বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। মাধবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু বলেন, ইউনিয়নের হীরামতি গ্রাম, শুকুর উল্যার গাঁওসহ কমপক্ষে পাঁচটি স্থানে প্রতিরক্ষা বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। ভারী বৃষ্টিতে ও পাহাড়ি ঢলে সোমবার রাতে  আদিয়া ছড়ার প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে বেশ কিছু এলাকার ফসলি জমি তলিয়ে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড মৌলভীবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী ফয়জুর রব বলেন, আসলে গত চার দিন ধরে প্রতি রাতেই মৌলভীবাজার জেলাসহ ভারতীয় পাহাড়ি এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আর বৃষ্টির পানির সাথে উজানের পাহাড়ি ঢলে কমলগঞ্জে ধলাই, লাঘাটা নদী ও মৌলভীবাজারে মনু নদের পানি বেড়ে গেছে। মনু নদের পানি বিপদ সীমা অতিক্রম করতে না পারলেও কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি বিপদ সীমার এক ফুট উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

ধলাই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের বেশ কিছু অংশ ঝুঁকিপূর্ণ  স্বীকার করে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, রাতে আবার বৃষ্টি হলে ধলাই নদীর পানি আরও বৃদ্ধি পেয়ে হালকা একটি বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড ধলাই ও মনু নদের উপর সার্বক্ষনিক নজরদারী করছে।

এ দিকে ভারী বৃষ্টিতে বিভিন্ন পাহড়ি ছড়ার পানি ফসলি জমিতে প্রবেশ করায় কমলগঞ্জ উপজেলার ৬০ হেক্টর জমির রোপিত আমন ফসল তলিয়ে যাবার কথা নিশ্চিত করে কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টায় তেমন বৃষ্টিপাত না হলে ফসলি জমি থেকে ঢলের পানি নেমে যাবে।

রিপোর্ট-প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ