- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, সিলেট, স্লাইডার

খাদিজার উপর হামলা : ক্ষোভ বিক্ষোভ প্রতিবাদে উত্তাল সিলেট

মোয়াজ্জেম সাজু, সিলেট, ০৫ অক্টোবর :: সিলেটে কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

তিন দিনব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ০৫ অক্টোবর বুধবার সকাল থেকে কর্মসূচী পালনে কলেজ ক্যাম্পাসে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষার্থীরা।

পরে খাদিজার ওপর হামলাকারী শাবি ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের ফাঁসির দাবি জানিয়ে শিক্ষার্থীরা কলেজ ক্যাম্পাস থেকে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিল বের করেন। মিছিলটি চৌহাট্টা, রিকাবীবাজার, জিন্দাবাজার ঘুরে ক্যাম্পাসের সামনে এসে শেষ হয়।

শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এসময় ‘ফাঁসি, ফাঁসি, ফাঁসি চাই’ শ্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে পুরো চৌহাট্টা এলাকা।

এসময় অবরোধের কারণে চৌহাট্টা-জিন্দাবাজার সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনের আহবায়ক সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী ফজিলাতুন্নেসা বলেন, আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমাদের মা-বাবা আমাদেরকে স্কুল কলেজে পাঠান, কিন্তু আসলেই কি সেখানে আমরা নিরাপদ। কোপানোর সংস্কৃতি আজ কলেজেও ঢুকে গেছে। আর কত খাদিজা মরলে আমরা নিরাপত্তা পাবো।

হামলাকারী বদরুলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার সিলেটের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ সফল করতে সহযোগিতা কামনা করেন।

পরে কলেজটির শিক্ষকরা সড়ক অবরোধ তুলে নিতে অনুরোধ জানালে এবং দ্রুত বিচারের আশ্বাস দিলে প্রায় দেড় ঘণ্টা পর অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে মঙ্গলবার বিক্ষোভ সমাবেশ করে তিন দফা দাবিতে তিন দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করেন সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবিগুলো হচ্ছে, মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর, আসামী বদরুলের ফাঁসি নিশ্চিত করা এবং পরীক্ষার হল ও যাতায়াতের সময় ছাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

তাদের পরবর্তী কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে, কালো ব্যাজ ধারণ ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান।

গত সোমবার বিকেলে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে সরকারি মহিলা কলেজের ডিগ্রী ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী নার্গিস বেগম খাদিজার (২৩) উপর হামলা চালায় শাহাজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল ইসলাম। এসময় চাপাতি দিয়ে উপর্যুপুরি কুপিয়ে খাদিজাকে গুরুতর আহত করেন।

পরে হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতা বদরুলকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয় জনতা।

এ ঘটনায় বদরুলকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িকভাবে বহিস্কার করেছে। সিলেটে কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

তিন দিনব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বুধবার সকাল থেকে কর্মসূচী পালনে কলেজ ক্যাম্পাসে জড়ো হতে থাকেন শিক্ষার্থীরা।

পরে খাদিজার ওপর হামলাকারী শাবি ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের ফাঁসির দাবি জানিয়ে শিক্ষার্থীরা কলেজ ক্যাম্পাস থেকে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিল বের করেন। মিছিলটি চৌহাট্টা, রিকাবীবাজার, জিন্দাবাজার ঘুরে ক্যাম্পাসের সামনে এসে শেষ হয়।

শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের সামনে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এসময় ‘ফাঁসি, ফাঁসি, ফাঁসি চাই’ শ্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে পুরো চৌহাট্টা এলাকা।

এসময় অবরোধের কারণে চৌহাট্টা-জিন্দাবাজার সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনের আহবায়ক সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী ফজিলাতুন্নেসা বলেন, আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমাদের মা-বাবা আমাদেরকে স্কুল কলেজে পাঠান, কিন্তু আসলেই কি সেখানে আমরা নিরাপদ। কোপানোর সংস্কৃতি আজ কলেজেও ঢুকে গেছে। আর কত খাদিজা মরলে আমরা নিরাপত্তা পাবো।

হামলাকারী বদরুলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার সিলেটের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ সফল করতে সহযোগিতা কামনা করেন।

পরে কলেজটির শিক্ষকরা সড়ক অবরোধ তুলে নিতে অনুরোধ জানালে এবং দ্রুত বিচারের আশ্বাস দিলে প্রায় দেড় ঘণ্টা পর অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে মঙ্গলবার বিক্ষোভ সমাবেশ করে তিন দফা দাবিতে তিন দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করেন সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা। তাদের দাবিগুলো হচ্ছে, মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর, আসামী বদরুলের ফাঁসি নিশ্চিত করা এবং পরীক্ষার হল ও যাতায়াতের সময় ছাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

তাদের পরবর্তী কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে, কালো ব্যাজ ধারণ ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান।

গত সোমবার বিকেলে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে সরকারি মহিলা কলেজের ডিগ্রী ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী নার্গিস বেগম খাদিজার (২৩) উপর হামলা চালায় শাহাজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল ইসলাম। এসময় চাপাতি দিয়ে উপর্যুপুরি কুপিয়ে খাদিজাকে গুরুতর আহত করেন।

পরে হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতা বদরুলকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয় জনতা।

এ ঘটনায় বদরুলকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িকভাবে বহিস্কার করেছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *