অক্টোবর ১৯, ২০১৬
Home » জাতীয় » বাহুবলে পুলিশ শিক্ষার্থী সংঘর্ষের ঘটনায় এসআই সাময়িক বরখাস্ত : সালিশে ঘটনার নিষ্পত্তি

বাহুবলে পুলিশ শিক্ষার্থী সংঘর্ষের ঘটনায় এসআই সাময়িক বরখাস্ত : সালিশে ঘটনার নিষ্পত্তি

এইবেলা, হবিগঞ্জ, ১৯ অক্টোবর :: হবিগঞ্জ বাহুবল উপজেলা সদরে বাহুবল দীননাথ মডেল স্কুলের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় জাতীয়করণ সংক্রান্ত বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামছুন্নাহার পারভীনের অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও অফিস ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট ছুড়লে ৫ ছাত্র গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছে। বিকেলে সালিশের মাধ্যমে এ ঘটনার নিষ্পত্তি করা হয়।

বুধবার (১৯ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে দীননাথ ইনস্টিটিউশন মডেল হাইস্কুলের ম্যানেজিং কমিটি, ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও স্থানীয় জনগণ শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় ঘেরাও করে রাখে। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সেখান থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি একপর্যায়ে থানা ক্যাম্পাসে ঢুকে হট্টগোল সৃষ্টি করে। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট ছুঁড়লে ৫ জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ দুই শিক্ষকসহ চারজনকে আটক করে। আটক ব্যক্তিরা হলেন- দ্বীননাথ হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক অশোক দাস ও গোলাম মহিউদ্দিন, দশম শ্রেণির ছাত্র জাহাঙ্গীর। অপরজন বহিরাগত। তার পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আহতদের মধ্যে নবম শ্রেণির ছাত্র রেজাউল করিম ও আব্দুর রহমান, সপ্তম শ্রেণির ছাত্র পায়েল, দশম শ্রেণির ছাত্র আনহার আলী ও বিল্লাল হোসেনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র ঘটনাস্থলে পৌঁছে উপ পরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন।

এছাড়া হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি মুনিম চৌধুরী বাবু ও বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাইয়ের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি নিষ্পত্তি করেন। ঘটনার সময় আটক ব্যক্তিদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই আহতদের চিকিৎসার দায়িত্ব নেন।

এদিকে খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

বাহুবল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান আটকৃতদের ছেড়ে দেয়ার ও  সালিশে নিষ্পত্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।#