নভেম্বর ৩০, ২০১৬
Home » জাতীয় » বিএনপি নির্বাচনে না গেলেও জেলা পরিষদ নির্বাচন করবেন কুলাউড়ার সাবেক এমপি এমএম শাহীন

বিএনপি নির্বাচনে না গেলেও জেলা পরিষদ নির্বাচন করবেন কুলাউড়ার সাবেক এমপি এমএম শাহীন

এইবেলা, কুলাউড়া, ৩০ নভেম্বর ::বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও কুলাউড়ার আলোচিত সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা এমএম শাহীন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন। সেই লক্ষ্যে ব্যাপক গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। মৌলভীবাজার জেলার ৭ উপজেলার সবক’টি পৌরসভার মেয়র, কাউন্সিলর, ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বারদের পাশাপাশি সাংবাদিকদের সাথেও মতবিনিময় করছেন। ইতোমধ্যে পুরো জেলা চষে বেড়ানো সম্পন্ন করেছেন।

শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালাপুর ইউনিয়নে জনপ্রতিনিধিদের সাথে এমএম শাহীন

শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালাপুর ইউনিয়নে জনপ্রতিনিধিদের সাথে এমএম শাহীন

কুলাউড়া সাবেক এমপি এমএম শাহীন রাজনীতিতে পদার্পণের পর থেকে ছিলেন ব্যাপক আলোচিত সমালোচিত। সর্বশেষ জেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজেকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে আবার রাজনীতির মাঠে তুলেছেন আলোচনার ঝড়। তিনি লড়বেন জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক ও আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান নেতা আজিজুর রহমানের বিরুদ্ধে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে নভেম্বর মাস থেকে এ নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা। তিনি বিএনপি থেকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য গত ১৬ নভেম্বর মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি খালেদা রাব্বানীর বাসভবনে জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করেন। জেলার অনেক শীর্ষনেতা সেখানে উপস্থিত থাকলে দেশের বাইরে অবস্থানের কারণে প্রয়াত সাবেক অর্থমন্ত্রী পুত্র ও মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমান সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন না। এমএম শাহীনের এই ঘোষণার পর অবশ্য নাসের রহমান বলয়ের বর্ষিয়ান নেতা অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান মুজিব নির্বাচনে অংশ নেয়ার ইচ্ছা পোষণ করেন। যদিও এরই মধ্যে এমএম শাহীন মৌলভীবাজার জেলার সবক’টি উপজেলা চষে বেড়িয়েছেন। মতামত নিয়েছেন জনপ্রতিনিধিদের। চাইছেন দোয়া ও আশীর্বাদ। এর পাশাপাশি পুরো জেলার গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করছেন। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি কুলাউড়ায় কর্মরত গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন।

 ৩)বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নে জনপ্রতিনিধিদের সাথে জাপা (জাফর) নেতা আলী আব্বাস খান ও এমএম শাহীন


৩) বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নে জনপ্রতিনিধিদের সাথে জাপা (জাফর) নেতা আলী আব্বাস খান ও এমএম শাহীন

সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এমএম শাহীনে নিজে একজন গণমাধ্যম কর্মী হিসেবে সবার বাস্তবসম্মত ও সঠিক সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে সহযোগিতার আহ্বান জানান।

এদিকে এক সময়ের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও কুলাউড়ার সাবেক এমপি নওয়াব আলী আব্বাস খানও নেমেছেন এমএম শাহীনের পক্ষে নির্বাচনী মাঠে। জাতীয় পার্টির এই সাবেক এমপি বিএনপির কেন্দ্রিয় জোটের মিত্র জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) এর প্রেসিডিয়াম সদস্য। তিনি জানান, আমার দল এখন বিএনপি জোটের শরিক দল। এমএম শাহীন আমার সহযোগিতা চেয়েছেন। তাই তাঁর পক্ষে মাঠে নেমেছি।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে কি করবেন?-এই প্রশ্নের জবাবে এমএম শাহীনের অন্যতম সমর্থক ও সাবেক চেয়ারম্যান এসএম জামান মতিন বলেন, বিএনপি নির্বাচন না করার ঘোষণা দিলেও বিএনপির কেউ নির্বাচন করলে তার ব্যাপারে দল কোন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেনি।

সাবেক এমপি এমএম শাহীন বলেন, নির্বাচন দলীয় প্রতিক ছাড়াই অনুষ্ঠিত হবে, তাই নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়ার সম্ভবনা থেকেই তিনি প্রার্থী হচ্ছেন। জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসেবে অনেক উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করার মাধ্যমে জনগণের সেবা করার সুযোগ রয়েছে। বিগত দিনে মানুষ সেই সেবা বঞ্চিত হয়েছে। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে একটি ব্যতিক্রমী জেলা পরিষদ গঠন করাই তাঁর মুল লক্ষ্য।

তিনি আরও বলেন, এটা দলীয় প্রতিকের নির্বাচন নয়। উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিদের মতামত গ্রহণ করেছেন। এটা একটি নির্দলীয় এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে বলে তিনি আশাবাদী। ইতিপূর্বে মৌলভীবাজার জেলায় অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন তাকে আশাবাদী করেছে।#