- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

হাকালুকি হাওরের মৎস্য অভয়াশ্রম ও জলজ বন ব্যবস্থাপনার জন্য ভিসিজিকে ৩টি বিল হস্তান্তর

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৬ জানুয়ারি :: এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকির মৎস্য অভয়াশ্রম ও জলজ বন ব্যবস্থাপনার জন্য গ্রাম সংরক্ষণ দল (ভিসিজি) কে ৩টি বিল হস্তান্তর করা হয়েছে। ফলে হাকালুকি হাওরের কোন সরকারি বা বেসরকারি সংস্থার উন্নয়ন প্রকল্প না থাকলেও মৎস্য অভয়াশ্রম ও জলজ বন ব্যবস্থাপনায় কোন ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হবে না।

হাকালুকি হাওরের জীববৈচিত্র্য রক্ষণাবেক্ষণের জন্য হাওর সংলগ্ন ৫টি উপজেলার  অর্ন্তভূক্ত ১১ টি ইউনিয়নে পরিবেশ অধিদফতরের মাধ্যমে ২৮ টি গ্রাম সংরক্ষণ দল (ভিসিজি) গঠন করা হয়। যারা হাকালুকি হাওরের প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ ও ব্যবস্থাপনায় সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সহযোগিতা করবে।

ইতিমধ্যে বাংলাদেশ সরকারের ভুমি মন্ত্রণালয় হাকালুকি হাওরের ১৮টি বিলকে অভয়াশ্রম হিসাবে ঘোষণা করে। যদিও বর্তমানে ১২টি বিল অভয়াশ্রম হিসাবে টিকে আছে। এর মধ্যে ১০ টি অভয়াশ্রমই বিভিন্ন ভিসিজি কর্তৃক ব্যবস্থাপনা ও সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়া হাওড়ের জলজ বন সংরক্ষণ ও নতুন বনায়ন রক্ষা করে আসছে।

কৈয়ারকোনা বিল অভয়াশ্রমটি হাল্লা ভিসিজি ব্যবন্থাপনা করে আসছে কিন্তু ভিসিজির পর্যাপ্ত তহবিল না থাকার কারণে সবসময় কোন কোন প্রকল্পের উপর নির্বরশীল হতে হয়েছে। হাল্লা ভিসিজি’র কৈয়ারকোনা বিল অভয়াশ্রম ও হাওরের প্রাকৃতিক সম্পদ টেকসই ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে সিএনআরএস কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ইউএসএইড’র ক্রেল প্রকল্পের সহযোগিতায় গর্ছিকোনা-গর্ছিউড়া ও চৌলা-চৌলার কোনা বিল দু’টি হাল্লা ভিসিজিকে লিজ দেয়ার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছিল। এরই ধারাবাহিকতায় বিল দু’টি হাল্লা ভিসিজিকে পরিবেশ অধিদফতরের মাধ্যমে গত ১ জানুয়ারি হস্তান্তর করা হয়। প্রকল্প না থাকলেও হাল্লা ভিসিজি গর্ছিকোনা-গর্ছিউড়া ও চৌলা-চৌলার কোনা বিল দু’টি লিজ পাওয়ায় তাদের ব্যবস্থাপনাধীন অভয়াশ্রম ও জলজ বন সঠিকভাবে ব্যবস্থাপনা করা যাবে।

এছাড়া একই দিনে জলজ বন সংরক্ষণে আর্থিক সমস্যা দুরিকরণে ভোলার কান্দি ভিসিজিকেও চান্দের বিল ও চান্দের চেপ্টি নামক বিলটি হস্তান্তর করা হয়।

উল্লেখ্য, এর আগে হাকালুকি হাওরে কাজ করে যাওয়া কোন প্রকল্পই অভয়াশ্রম ও জলজ বন রক্ষায় আর্থিক সক্ষমতা অর্জনে কোন ভিসিজিকে কোন বিল হস্তান্তর করতে পারেনি। ইউএসএইড’র ক্রেল প্রকল্পের সহযোগিতায় প্রথমবারের মত বিল হস্তান্তর করা সম্ভব হয়েছে। #

রিপোর্ট-আজিজুল ইসলাম

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *