জুন ৮, ২০১৫
Home » ব্রেকিং নিউজ » কুলাউড়ায় শুধুমাত্র ট্রান্সফরমার বদলাতে অসহায় গ্রামবাসী বিদ্যুৎ বিভাগকে উৎকোচ দিয়েছে দেড় লক্ষাধিক টাকা তবুও লাঘব হয়নি দুভোর্গ

কুলাউড়ায় শুধুমাত্র ট্রান্সফরমার বদলাতে অসহায় গ্রামবাসী বিদ্যুৎ বিভাগকে উৎকোচ দিয়েছে দেড় লক্ষাধিক টাকা তবুও লাঘব হয়নি দুভোর্গ

এইবেলা, কুলাউড়া ০৮ জুন :-

কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের সাতরা গ্রামের বাসিন্দারা গত ১০ বছরে ট্রান্সফরমার পরিবর্তনে বিদ্যুৎ বিভাগকে উৎকোচ দিয়েছেন দেড় লক্ষাধিক টাকা। এই ১০ বছরে নষ্ট হওয়ায় এবং চুরি যাওয়ায় পরিবর্তন করতে হয়েছে ৭টি ট্রান্সফরমার। বর্তমানে ট্রান্সফরমার স্থাপনে অনিয়ম এবং নতুন ট্রান্সফরমার বরাদ্ধের জন্য সিলেটস্থ বিদ্যুৎ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী বরাবরে লিখিত আবেদন করেছেন।

এলাকাবাসীর লিখিত আবেদন থেকে জানা যায়, সাতরা গ্রামের ১০৪ টি মিটারের আওতায় ১২শ লোক রয়েছে। গত ৩০ মে বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন ট্রান্সফরমারে কাজ করার পর বিদ্যুৎ সংযোগ দিতেই ট্রান্সফরমারটি বিকল হয়ে পড়ে। এরপর থেকে এই দুঃসহ গরমে গ্রামবাসী বিদ্যুতের আলোবাতাস বঞ্চিত।
এলাকাবাসীর অভিযোগ ২০০৫ সালে কুলাউড়া বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্র হতে আবেদন করে সকল খরচ বহন করে বিদ্যুৎ সংযোগ নেন। দুই বছর পর ট্রান্সফরমারটি চুরি হয়ে যায়। বিদ্যুৎ বিভাগে আবেদন করলেও ট্রান্সফরমার পেতে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন সংশ্লিষ্টরা। এলাকাবাসী ২৫ হাজার টাকা দিলে পুরাতন একটি ট্রান্সফরমার দেয়া হয়। স্থাপনকৃত পুরাতন ২য় ট্রান্সফরমারটি ৪ বছর পর নষ্ট হয়ে যায়। এলাকাবাসীর আবেদন করলে বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন ৩২ হাজার টাকা দাবি করেন। ৩০ হাজার টাকা দিলে আবারও পুরাতন একটি ট্রান্সফরমার স্থাপন করা হয়। যা স্থাপনের ১১ মাস পর পুনরায় নষ্ট হয় ৩য় ট্রান্সফরমার। বিদ্যুৎ বিভাগ এবার ১০০ কেভির একটি ট্রান্সফরমার স্থাপনের জন্য ২৫ হাজার টাকা দাবি করলে ১৯ হাজার টাকায় স্থাপন করা হয় ৪র্থ ট্রান্সফরমার। এর ৯ মাস পর যথানিয়মে বিকল হয় ৪র্থ ট্রান্সফরমার। এবার এলাকাবাসী বিদ্যুৎ বিভাগের কাছে একটি নতুন ট্রান্সফরমারের দাবি জানালে বিদ্যুৎ বিভাগ ৪৫ হাজার টাকা দাবি করে। ৪০ হাজার টাকা নিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগ নতুন না দিয়ে পুরাতন একটি ১০ কেভি ট্রান্সফরমার স্থাপন করে দেয়। এলাকাবাসীকে আশ্বস্থ করা হয়, নতুন ট্রান্সফরমার আসামাত্র তা বদলী করে দেয়া হয়ে। এই ৫ম ট্রান্সফরমারটিও লাগিয়ে দেয়ার একবছরের মধ্যে আবার বিকল হয়। কিন্তু এলাকাবাসী টাকা দিলেও তাদের ভাগ্যে কোন নতুন ট্রান্সফরমার জুটেনি। এরাকাবাসীর কাছে আরেকটি নতুন ট্রান্সফরমারের জন্য ৩০ হাজার টাকা দাবি রে বিদ্যুৎ বিভাগ। এবার দাবিকৃত পুরো ৩০ হাজার টাকা দিলেও ফের একটি পুরানো ট্রান্সফরমার লাগিয়ে দেয়া হয়। বিদ্যুৎ বিভাগের সাব এ্যাসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার কামরুল এই ট্রান্সফরমার স্থাপনের পর ১০ বছরের গ্যারান্টি দেন কিন্তু মাত্র ৩ মাসের মাথায় এটিও বিকল হয়ে যায়। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর ৫জন প্রতিনিধি  বিষয়টি সাব এ্যাসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার কামরুলের কাছে  বিষয়টি জানাতে আসলে তিনি তাদের পুলিশে সোপর্দ করতে থানা পুলিশ ডাকেন। অবশ্য পুলিশ বিষয়টি বুঝতে পেরে তাদের ছেড়ে দেয়।
কুলাউড়া বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু জাফর উল্লাহ জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই আমি খোঁজ নিয়ে দেখবো।
এব্যাপারে বিদ্যুৎ বিভাগ সিলেট অফিসের প্রধান প্রকৌশলী জানান, এলাকাবাসীর অভিযোগটি আমার হাতে এসে পৌছায় নি। আমি অভিযোগটি পেলে খতিয়ে দেখবো এবং অবশ্যই ব্যবস্থা নেবো।#

রিপোর্ট -আব্দুল আহাদ