জুলাই ২৭, ২০১৭
Home » জাতীয় » কুলাউড়ার চৌধুরী বাজার মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত

কুলাউড়ার চৌধুরী বাজার মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত

এইবেলা, কুলাউড়া, ২৭ জুলাই ::

কুলাউড়া উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিনের চৌধুরী বাজার জিএস কুতুব শাহ দাখির মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের ঘটনা তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্টে ৬৯ লাখ ১১ হাজার ৬৬৮ টাকা আত্মসাতের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। অবশ্য মাদ্রাসা সুপার আবু আইয়ুব আনসারী অর্থ আত্মসাতের বিষয়টি অস্বীকার করেন এবং তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পাননি বলে জানান।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ‘কুলাউড়ায় মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ’ শীর্ষক একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। এর প্রেক্ষিতে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দেন। তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির কাছে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করেন কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌ. মো. গোলাম রাব্বি।

৩ সদস্যের তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক সহকারী কমিশনার (ভূমি), সদস্য  ও অডিটর উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিসার এবং উপজেলা কৃষি অফিসার স্বাক্ষরিত তদন্ত রিপোর্টে মন্তব্য কলামে উল্লেখ করা হয়, তদন্ত কমিটির রিপোর্টে বিভিন্ন খাতে মাদ্রাসা সুপার মোট ৬৯ লাখ ১১ হাজার ৬৬৮ টাকা আত্মসাতের কথা উল্লেখ রয়েছে। এরমধ্যে ১ লাখ ৩৪ হাজার টাকা সেকায়েপ প্রদত্ত। রেজিস্টারসমুহ, নথিপত্র, ব্যাংক স্টেমেন্টসহ অন্যান্য কাগজাদি পর্যালোচনা করে চৌধুরীবাজার গাউছিয়া সুন্নিয়া কুতুবশাহ দাখিল মাদ্রাসার আয় ব্যয়ের অসঙ্গতি পরিলক্ষিত হয় এবং মাদ্রাসা সুপার মৌলানা আবু আইয়ুব আনসারী কর্তৃক অর্থ আত্মসাতের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া যায়।

এব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌ. মো. গোলাম রাব্বি জানান, তদন্ত প্রতিবেদন মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির কাছে দেয়া হয়েছে। এখন ম্যানেজিং কমিটি তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।#