সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭
Home » ব্রেকিং নিউজ » মুচলেখায় জনপ্রতিনিধিরে জিম্মায় ছাড়া পেলেন আটক কিশোর বর ও তার বাবা

মুচলেখায় জনপ্রতিনিধিরে জিম্মায় ছাড়া পেলেন আটক কিশোর বর ও তার বাবা

প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ, কমলগঞ্জ, ২৩ সেপ্টেম্বর ::

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের পারুয়াবিল গ্রামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া কিশোর কিশোরী ঘটনায় কমলগঞ্জ থানা হাজতে আটক ছিলেন কিশোর বর রশীদ মিয়া ও তার বাবা ময়না মিয়া। শুক্রবার রাতে থানায় মুচলেখা দিয়ে মাধবপুর ইউনিয়ন পরিষদেন চেয়ারম্যান ও সদস্যদের জিম্মায় ছাড়া পেলো।

শুক্রবার ২২ সেপ্টেম্বর বেলা দুইটায় মাধবপুরের পারুয়াবিল গ্রামের মৃত আরব উল্যার মেয়ে কিশোরী আছিয়া আক্তারের (১৫) বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল একই ইউনিয়নের মাধবপুর চা বাগানের ময়না মিয়ার ছেলে ট্রলি চালক রশিদ মিয়া (১৬)-র সাথে। বর কনের বিয়ের বয়স হয়নি আর এখন বিয়ে হলে তা হবে বেআইনী এ বিষয়ে এলাকাবাসী বর পক্ষকে আগে জানালেও তারা ঘরুয়া পরিবেশে গোপনে কোন প্রকার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই বিয়ের আয়োজন করেছিল। গোপনে সংবাদ পেয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নির্বাহী হাকিম মোহাম্মদ মাহমুদুল হক পুলিশের একটি দল নিয়ে এ গ্রামে অভিযান চালিয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন।

বাল্যবিবাহের চেষ্টার কারণে বর কিশোর রশিদ মিয়া  ও তার বাবা ময়না মিয়াকে আটক করে কমলগঞ্জ থানা হাজতে রাখা হয়েছিল। শুক্রবার রাতে মাধবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু ও তার পরিষদের সদস্য এবং গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যদের উপস্থিতিতে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত আর বিয়ের উদ্যোগ নিবেন না বলে আটক রশিদ মিযা ও তার বাবা ময়না মিয়া থানায় একটি মুচলেখা দেয়। পরে জনপ্রতিনিধিদের জিম্মায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

কমলগঞ্জ থানার ওসি মো: বদরুল হাসান ও মাধবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুচলেখায় আটক দুইজনকে ছেড়ে দেয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন।#