- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

রাজনগরে অন্ত:সত্ত্বা গৃহবধুর মৃত্যু নিয়ে নানারহস্য

এইবেলা, রাজনগর, ০৫ অক্টোবর ::

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মজিদপুর গ্রামে এক অন্ত:সত্ত্বা গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গৃহবধূর শ্বশুর বাড়ির লোকজন এই মৃত্যু আত্মহত্যা বললেও তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করছেন নিহতের পরিবারের লোকজন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের মজিদপুর গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে দুবাই প্রবাসী জিতু মিয়ার সাথে ৭ মাস আগে একই উপজেলার টেংরা ইউনিয়নের কাছারি গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী আব্দুল মন্নানের মেয়ে শাহিনা বেগমের (২০) বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী প্রবাসে চলে গেলে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শ্বশুড় বাড়ির লোকজনের সাথে ঝগড়া হত। মঙ্গলবার (০৩ অক্টোবর) বিকাল ৪ টার দিকে শাহিনা বেগম নিজের ঘরের দরজা আটকে ঘুমোতে যান। বিকাল ৫ টার দিকে শ্বাশুড়ী তাকে ডাকাডাকি করেও সাড়া না পেয়ে দরজা খুলেন। এসময় তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। তিনি অন্ত:সত্ত্বা ছিলেন।

এদিকে নিহতের পরিবারের দাবি, শাহিনাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তাদের দাবি, ৩-৪ মাস ধরে শাহিনার উপর শ্বাশুড়ী ও ননদ মিলে বিভিন্ন অপবাদ দিতে থাকেন। শাহিনা বিষয়টি ফোনে স্বামীকে জানালেও স্বামী বিষয়টি নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নেননি। সোমবার একই বিষয় নিয়ে তাদের সাথে ঝগড়া হলে শাহিনা তার স্বামীকে বিষয়টি জানান। এসময় স্বামী তাকে দেশে ফিরে এসে তালাক দেয়ার হুমকি দেন। স্বামীকে বিষয়টি জানানোর কারনে শাহিনাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন নিহতের মা মনোয়ারা বেগম।

নিহতের মা মনোয়ারা আরও বলেন, শ্বাশুড়ী ও ননদের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে শাহিনা তার স্বামীর কাছে আমাদের বাড়িতে এসে থাকার অনুমতি চায়। কিন্তু বাপের বাড়ি আসলে স্বামী দেশে ফিরে এসে তাকে তালাক দেয়ার হুমকি দেয়। নির্যাতনের বিষয়টি স্বামীকে জানানোর কারনে শ্বাশুড়ী ও ননদ মিলে তাকে হত্যা করেছে। আমার মেয়ে মারা যাওয়ার খবর তারা রাতে মোবাইল ফোনে আমাকে জানায়।

রাজনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শ্যামল বনিক জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *