- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

রাজনগরে চা বাগান এলাকায় ৩৫ জন কুষ্ট রোগি শনাক্ত

এইবেলা, রাজনগর, ১১ অক্টোবর ::

মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার চা বাগানের শ্রমিকেরা কুষ্টরোগের ঝুঁকিতে রয়েছেন। চলতি বছরে উপজেলার ১৪টি চা বাগানে ৩৫ জনকে বিভিন্ন লক্ষণ দেখে কুষ্ট রোগী হিসেবে সনাক্ত করা হয়েছে। তবে তাদের ব্যাপারে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। পুষ্টি ও স্বাস্থ্য সম্পর্কে অসচেতনতার কারণেই এ ঝুঁকি আরও বাড়ছে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিভাগ।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এই উপজেলায় ২০১৬ সালে একজন রোগীকে সনাক্ত করে চিকিৎসা দেয়া শুরু করে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। ২০১৭ সালের শুরুর দিকে আরো একজন আক্রান্ত রোগী চিহ্নিত করে চিকিৎসা শুরু করা হয়। আগষ্ট মাস পর্যন্ত রাজনগর চা-বাগান, করিমপুর চা-বাগান, চানবাগ ও আমিনাবাদ চা-বাগানে জরীপ করে বেসরকারী সংস্থা ‘লেপ্রা বাংলাদেশ’। এসময় এ ৪টি বাগান থেকেই ৩৫ জনের শরীরে কুষ্ঠরোগের লক্ষণ দেখতে পান তারা। বাকী বাগানগুলোতে জরীপ করলেও আরো রোগী পাওয়া যেতে পারে বলে মনে করছেন কুষ্ঠ নির্মূলে দায়িত্ব প্রাপ্ত লেপ্রা বাংলাদেশের কর্মকর্তারা।

বুধবার ১১ অক্টোবর সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হল রুমে কুষ্ঠরোগ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে উপজেলার চিকিৎসাধীন রোগী, প্রাথমিক লক্ষণ থাকা রোগী ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের নিয়ে এক অনুষ্ঠান করে এনজিও সংস্থা লেপ্রা বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশ, মেডিকেল অফিসার ডা. সম্পা রানী পাল, লেপ্রা বাংলাদেশের জেলা প্রজেক্ট অর্গানাইজার দিপঙ্কর ব্রক্ষ্মচারী, উপজেলা টিএলসিএ হরিপদ দেব, সাবেক স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুনীল লাল বৈদ্য, রাজনগর প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেন প্রমুখ।

মাঠপর্যায়ে এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা না থাকায় এ রোগে আক্রান্তের ঝুঁকি বাড়ছে। রোগ সম্পর্কে ধারণা না থাকায় রোগীরাও অবহেলা করছেন চিকিৎসা নিতে এমনটাই জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বর্ণালী দাশ। তিনি বলেন, চা-বাগান এলাকার মানুষ বেশি ঝুঁকিতে রয়েছেন। কুষ্ঠরোগ সনাক্ত করে চিকিৎসা দিলে রোগটি নির্মূল করা যায়। তবে অনেক ক্ষেত্রে ২-৫ বছর পর রোগীর শরীরে লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ায় রোগী ক্ষতিগ্রস্থ হন। আবার এর চিকিৎসা দীর্ঘ মেয়াদী হয়ায় অনেক রোগী মাঝ পথেই চিকিৎসা নেয়া বন্ধ করেদেন। তবে স্বাস্থ্য বিভাগ এই উপজেলা থেকে পুরোপুরি কুষ্ঠ নির্মূলে কাজ করে যাবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *