জুন ২৭, ২০১৫
Home » ব্রেকিং নিউজ » ফলো আপ: কমলগঞ্জে নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষে থানায় মামলা ॥ ২ জন গ্রেফতার

ফলো আপ: কমলগঞ্জে নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষে থানায় মামলা ॥ ২ জন গ্রেফতার

এইবেলা, কমলগঞ্জ ২৭ জুন :-

জমির মালিকানার বিরোধকে কেন্দ্র করে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে হয়রানীমূলক মামলা দিয়ে দুই নারীকে গ্রেফতারের পর পুলিশের ইশারায় বাড়ি ভাংচুর ঘটনার পর শুক্রবার রাতে নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষে পতনঊষার ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ শনিবার ভোররাতে এই মামলার এজাহারভূক্ত ২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে। নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষে মামলায় কিছু নিরপরাধ ব্যক্তিকে আসামী করায় স্থানীয়ভাবে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে গত বৃহষ্পতিবার ও শুক্রবার দু’দফায় শ্রীরামপুর গ্রামে মুজিবুন নেছা (৫৫)-র বাড়ির দ’ুটি টিন শেডের মাটির দেয়ালের ঘর ভেঙ্গে মাটির সাথে মিশিয়ে ফেলা হয়েছে। বাড়ির ভিতরের চার সীমানার গাছ গাছালি কেটে ফেলা হয়েছে। নির্যাতিতা সুমেনা বেগম বলেন, তার শ্বশুড়ের পূর্বপুরুষদের জমির মালিকানা দাবি করে পাশ্ববর্তী সুফিয়ান, কামরুল, হান্নানদের সাথে দীর্ঘ দিনের বিরোধ চলছিল। প্রতিপক্ষের লোকেরা প্রাণনাশের হুমকি দিলে কিছুদিন আগে তারা থানায় একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগ তদন্তাধীন থাকা অবস্থায় হয়রানীমূলক মামলা দিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে কমলগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল আজিজের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল বাড়ির মুজিবুন নেছা (৫৫) ও তার বোন মুহিবুন নেছা (৪২)কে গ্রেফতার করে নেয়। এদিকে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মো: শাহ জালাল ও সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো: আশরাফুল আলম শুক্রবার বিকাল ৩টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করার পরই এ ঘটনায় অভিযুক্ত কমলগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল আজিজকে প্রত্যাহার করা হয়। পুলিশ সুপারের ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর শুক্রবার রাতে নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষে শ্রীরামপুর গ্রামের খন্দকার মমিনুর রহমান বাদী হয়ে পতনঊষার ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শামছুর রহমান সহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী অফিসার কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) বদরুল হাসানের নের্তৃত্বে একদল পুলিশ শ্রীরামপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে শনিবার ভোররাতে শ্রীরামপুর গ্রাম থেকে সাইফুল ইসলাম (৩৫) ও ময়নুল ইসলাম (৩৩) নামে এজাহারভুক্ত ২ আসামীকে গ্রেফতার করেন। শনিবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত ২ আসামীকে মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি মো: এনামুল হক বলেন, নির্যাতিতা পরিবারের মামলার ২ জন আসামী গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে পতনঊষার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবু শনিবার বিকেলে এ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে বলেন, শ্রীরামপুর গ্রামের ঘটনাটি অত্যন্ত নিন্দনীয়। আমি এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করছি। তবে এই ঘটনা নিয়ে স্থানীয়ভাবে রাজনীতি শুরু হয়েছে। নির্যাতিতা পরিবারের পক্ষ থেকে ফায়দা হাসিলের জন্য একটি প্রভাবশালী মহলের ইন্ধনে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শামছুর রহমান সহ কয়েকজন নিরপরাধ ব্যক্তিকিকে আসামী করায় স্থানীয়ভাবে ক্ষোভ বিরাজ করছে।#

রিপোর্ট- প্রনীত রঞ্জন দেবানাথ