ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮
Home » জাতীয় » কুলাউড়ায় ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গ সংগঠনের দু’ গ্রুপের সংঘর্ষ : ৭ পুলিশসহ আহত ৩০

কুলাউড়ায় ক্ষমতাসীন দলের অঙ্গ সংগঠনের দু’ গ্রুপের সংঘর্ষ : ৭ পুলিশসহ আহত ৩০

এইবেলা, কুলাউড়া, ২৬ ফেব্রুয়ারি ::

কুলাউড়া পৌর এলাকায় ব্যাডমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দু’গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১১টায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সায়হাম রুমেল ও কুলাউড়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া আল জেবুসহ উভয় পক্ষে অন্তত ২৩ জন নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন। এছাড়াও ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার লস্করপুর যুব সংঘের ব্যাডমিন্টন ফাইনাল খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী সভা পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ একাংশের সাধারণ সম্পাদক এহসান আহমেদ টিপুকে। ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মিসবাউর রহমান। এনিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে বিতর্কে জড়ান স্বেচ্ছাসেবক লীগের অপরাংশের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মান্না। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে সমাধান করে দেয়া হলেও অনুষ্ঠান শেষে উভয়গ্রুপের মধ্যে ফের উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

উছলাপাড়াস্থ সিএনজি পাম্পের সম্মুখে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সায়হাম রুমেল ও কুলাউড়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া আল জেবু, উজ্জ্বল আহমদ, সালমান আহমদ, আব্দুল হাকিম সাফু এবং প্রতিপক্ষের মান্না ও আব্দুল ওয়াদুদসহ উভয়পক্ষে ২৩ জন আহত হয়। আহতরা কুলাউড়া ও মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

খবর পেয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়ে। এসময় সংঘর্ষে ৭ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলো- কুলাউড়া থানার এসআই জহিরুল ইসলাম, এসআই হারুন আলম ভুইয়া রশিদ, এসআই মাসুদ আলম, পুলিশ কনস্টেবল নাসির উদ্দিন, আফসার আহমদ, ফয়ছল আহমদ ও নাসির হোসেন।

এদিকে রাতের হামলার ঘটনার জের ধরে সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি দিনভর কুলাউড়া শহরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বিকেলে ছাত্রলীগ এক প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে।

এব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শামীম মুসা জানান, কোন পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেনি। পুলিশ অ্যাসল্ট ঘটনা আমরা তদন্ত করছি। শহরে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে পুলিশ সে ব্যাপারে তৎপর রয়েছে।#