- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

রাজনগরে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত যুবতীর সিলেটের ওসমানীনগরের : ধর্ষণের পর যাকে হত্যা করা হয়

এইবেলা, রাজনগর, ০৩ জুন ::

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত নারীর লাশের পরিচয় মিলেছে। নিহতের নাম রাশেদা বেগম (৩০)। সিলেটে ওসমানীনগর উপজেলার পূর্বপৈলনপুর ইউনিয়নের অইয়া গ্রামের মৃত ফরাসত মিয়ার মেয়ে। এ ঘটনায় পুলিশ আবারক মিয়া (২২) নামত এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। ০৩ জুন রোববার বিকালে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গণধর্ষণ শেষে রাশেদাকে হত্যা করে লাশ গুম করা হয়েছিলো বলে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে গ্রেফতারকৃত আবারক মিয়া।

আটক আবারক মিয়া রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নের ছিককা গ্রামের মজম্মিল মিয়া ওরফে মজু মিয়ার ছেলে।

পুলিশ ও মামলার সূত্রে জানা যায়, ওসমানীনগর উপজেলার পূর্বপৈলনপুর ইউনিয়নের অইয়া গ্রামের মৃত ফরাসত মিয়ার মেয়ে রাশেদা বেগমের (৩০) মোবাইল ফোনের সূত্রে পরিচয় ছিল গ্রেফতারকৃত আবারক মিয়া ও মৌলভীবাজারের অপর এক যুবকের সঙ্গে। এর সূত্রধরে বেশ কয়েক বার তাদের দেখা-সাক্ষাতও হয়েছে। গত বুধবার ৩০ মে তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য মৌলভীবাজার আসেন রাশেদা বেগম। সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের ওই যুবককে নিয়ে রাজনগর উপজেলা পরিষদের সামনে আসেন রাশেদা। এসময় ওই যুবক আবারক মিয়াকেও ফোন করে রাজনগর নিয়ে আসেন। রাশেদাকে নিয়ে তারা উপজেলা পরিষদের পার্শ্ববর্তী মাছুয়া নদীর ধার ঘেসে পুশ্চিম দিকে যেতে থাকেন। এসময় দক্ষিন খারপাড়া গ্রামের মোবারক মিয়ার বাড়ির পশ্চিম পাশে নদীর ধারে এসে ওই যুবক রাশেদাকে কুপ্রস্তাব করেন। এতে সে রাজি না হওয়ায় উভয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ার ভয়ে গলায় ওড়না পেছিয়ে তাকে হত্যা করে ধর্ষকরা। পরে লাশের সঙ্গে ইট বেধে নদীর অল্প পানিতেই তলিয়ে দেয় রাশেদার লাশ।

প্রযুক্তি ব্যবহার করে রাজনগর থানার এসআই জিয়াউল ইসলাম ও এসআই রাজিব হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ আবারক মিয়াকে কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার থেকে গ্রেফতার করে। রোববার বিকালে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতের ম্যজিস্ট্রেট জিয়াদুল হকের নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য,গত শুক্রবার ০২ জুন রাতে রাজনগর থানা পুলিশ দক্ষিণ খারপাড়া গ্রামের মোবারক মিয়ার বাড়ির পশ্চিমে মাছুয়া নদী থেকে ভাসমান যুবতীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে। লাশের খবর পেয়ে নিহতের ভাই রাজনগর থানায় এসে লাশ সনাক্ত করেন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজনগর থানার এসআই জিয়াউল ইসলাম জানান, আসামীরা রাশেদাকে ধর্ষণ করে লাশ পানিতে তলিয়ে গুম করার চেষ্টা করে।

রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, এ ঘটনা রাশেদার ভাই আব্দুল খালিদ বাদী হয়ে রাজনগর থানায় মামলা করেছেন্। নিহতের ভাইরা লাশ নিয়ে গেছে। একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *