জুন ২২, ২০১৮
Home » জাতীয় » চা শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচন রোববার : শেষ মুহূর্তের প্রচারনায় সরগরম

চা শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচন রোববার : শেষ মুহূর্তের প্রচারনায় সরগরম

এইবেলা, কমলগঞ্জ , ২২ জুন ::

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন ২৪ জুন রোববার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। চা শ্রমিকদের কাঙ্খিত কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে প্রতিটি চা বাগানে পঞ্চায়েত কমিটি ও ভ্যালি (অঞ্চল) কমিটির নির্বাচনের শেষ পর্যায়ে প্রচারনা আর গণ-সংযোগে এখন দেশের ২৩০টি চা বাগান সরগরম রয়েছে।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কার্যালয় শ্রীমঙ্গলস্থ লেবার হাউজ সূত্রে জানা যায়, দেশ স্বাধীনের পর টানা ৩৪ বছর একটি পক্ষ দ্বারা চা শ্রমকি ইউনিয়ন পরিচালিত হলেও সে সময় সাধারণ চা শ্রমিকরা ভোট প্রদান করে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে পারতেন না। ২০০৮ সালে সংগ্রাম কমিটি গঠণ করে ব্যাপক আন্দোলনের মাধ্যমে সে বছর প্রথমবার গণতান্ত্রীক উপায়ে চা শ্রমিকরা ২৬ অক্টোবর ভোট প্রদান করে প্রথমে পঞ্চায়েত কমিটি ও ভ্যালি কমিটির প্রতিনিধি নির্বাচন করেছিল। ২ নভেম্বর রোববার বাংলাদেশ চা শ্রমকি ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে। নির্বাচনে সংগ্রাম কমিটির সভাপতি মাখন লাল কর্মকার ও সাধারণ সম্পাদক রাম ভজন কৈরীর প্যানেল নির্বাচিত হয়েছিলেন।

নির্বাচিত এই কমিটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করে পরের মেয়াদে ২০১৪ সালে সরাসরি ৯৫ হাজার ৫০০ চা শ্রমিকের ভোটে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটি নির্বাচন করেছিল। ২০১৭ সালের আগষ্ট মাসে এ কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও নানা জটিলতায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অবশেষে শ্রম অধিদপ্তরের মাধ্যমে চলতি বছরের ২৭ মে চা শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনের তপশিল ঘোষণার মাধ্যমে ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু হয়। তপশিল অনুযায়ী রোববার ২৪ জুন সারা দেশের ৭টি ভ্যালিতে (অঞ্চলে) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একযোগে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনে মূলত দুটি মাখনলাল কর্মকার ও রাম ভজন কৈরী প্যানেল ও বিজয় প্রসাদ বুনার্জি ও সীতারাম অলমিক প্যানেলে সভাপতি ও সম্পাদক মন্ডলীর ৪টি করে পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। একই সাথে ২৩০টি চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটি ও ৭টি ভ্যালি কমিটিরও ভোট প্রদান করবে চা শ্রমিক ভোটাররা।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয় সূত্রে আর জানা যায়, বৃহত্তর সিলেট ও চট্রগ্রাম অঞ্চল মিলিয়ে সাতটি ভ্যালিতে সর্বশেষ তালিকা অনুযায়ী মোট ৯৮ হাজার ৭৫২ জন ভোটার ভোট প্রদান করবে।

ইতিমধ্যেই প্যানেল ও ব্যক্তিগত প্রার্থীরা প্রতীক পেয়ে পোষ্টার ছাপিয়ে গণ সংযোগের সাথে যানবাহনে মাইক লাগিয়ে নেচে গেয়ে প্রতিটি চা বাগানে নিজেদের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা চালিয়ে সরগরম করে রেখেছেন। প্রার্থীরা করছেন উঠান বৈঠক ও পথসভা। এ যেন চা বাগানে জাতীয় নির্বাচনের হাওয়া তবে প্রচারনায় নেই কোন হানাহানি ও উত্তেজনা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মাখন লাল কর্মর্কার ও রাম ভজন কৈরীর সভাপতি মন্ডলীতে দোয়াত কলম নিয়ে মাখন লাল কর্মকার সভাপতি পদে নির্বাচন করছেন। সাধারন সম্পাদক পদে রামভজন কৈরী ফুটবল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে বিজয় বুনার্জি- সীতারাম অলমিক প্যানেলে সভাপতি পদে বিজয় বুনার্জি সভাপতি পদে ছাতা প্রতীকে নির্বাচন করছেন। এ প্যানেলে সীতারাম অলমিক চেয়ার প্রতীকে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন। এছাড়া সভাপতি পদে বাইসাইকেল প্রতীকে শিউ ধনী কূর্মি স্বতন্ত্র হিসাবে সভাপতি পদে নির্বাচন করছেন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নারী প্রার্থী গীতা রানী কানু কলস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।

এদিকে কমলগঞ্জ উপজেলার ২২টি চা বাগান ও কুলাউড়া উপজেলার চাতলাপুর চা বাগান নিয়ে মোট ২৩টি চা বাগান নিয়ে মনু-ধলই ভ্যালিতে ১৫ হাজার ৫২ টি ভোটের জন্য ভ্যালি কমিটিতে সভাপতি পদে ধনা বাউরী, সহ-সভাপতি পদে গায়ত্রী রানী ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্মল দাশ পাইনকা রিক্সা প্রতীকে, আবার সভাপতি পদে সীতারাম বীন, সহ-সভাপতি পদে আলোমনি রবিদাস ও সম্পাদক কুশল চাষা,আম প্রতীকে নির্বাচন করছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী গোপাল নুনিয়া গোলাপ ফুল প্রতীকে ও প্রদীপ কালোয়ার কাঁঠাল প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, ৭টি ভ্যালিতে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলায় মোট ২৩টি ভোট কেন্দ্রে প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং, পোলিং অফিসার নিয়োগ হয়ে গেছে। শনিবার সকল কেন্দ্রে ভোটের বাক্সসহ ও ভ্যালট পেপার পৌছে যাবে। সার্বিক নিরাপত্তার জন্য প্রতি কেন্দ্রে আনসার সদস্যদের পাশাপাশি পুলিশও মোতায়েন করা হবে।#