জুলাই ৮, ২০১৮
Home » জাতীয় » সিলেট-ঢাকা-চট্রগ্রাম রেলপথ- ডাবল লাইন ডুয়েল গেজ রেললাইন ৪টি আন্ত:নগর ট্রেন চালুসহ ৯দফা দাবি

সিলেট-ঢাকা-চট্রগ্রাম রেলপথ- ডাবল লাইন ডুয়েল গেজ রেললাইন ৪টি আন্ত:নগর ট্রেন চালুসহ ৯দফা দাবি

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৮ জুলাই ::

আখাউড়া থেকে সিলেট সেকশনে ডাবল লাইন ডুয়েল গেজ রেলপথ ও সিলেট-ঢাকা-চট্রগ্রাম রেললাইনে দুটি করে আন্ত:নগর এক্সপ্রেস ট্রেন চালুসহ ৯দফা দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদানসহ আন্দোলনে যাচ্ছে ঢাকা-সিলেট রেলপথ উন্নয়ন বাস্তবায়ন কেন্দ্রীয় কমিটি। ইতোমধ্যে তারা সিলেট বিভাগে জনমত গড়ে তুলতে শ্রীমঙ্গল ও কুলাউড়া উপজেলায় সভা করেছে।

ঢাকা-সিলেট রেলপথ উন্নয়ন বাস্তবায়ন পরিষদ সুত্রে জানা যায়, সিলেটবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি সিলেট-ঢাকা-চট্রগ্রাম রেলপথে ৪টি আন্ত:নগর ট্রেন চালু করতে হবে।

সিলেট আখাউড়া সেকশনের আজমপুর স্টেশন হতে সিলেট পর্যন্ত ডাবল লাইন স্থাপন করতে হবে।

সিলেট-ঢাকা- চট্রগ্রাম লেলপথে প্রত্যকটি ট্রেনে ২০টি করে বগি সংযোজন করতে হবে।

টিকেটবিহীন অবৈধ যাত্রী চলাচল বন্ধ করতে হবে। কালনী ট্রেনের আজমপুর স্টপেজ বাতিল করতে হবে। ভেরব ব্রাহ্মণবাড়িয়া আউটারে পারাবত জয়ন্তিকা ও কালনী ট্রেন অবৈধভাবে থামানো ও যাত্রী উঠানামা বন্ধ করতে হবে।

সিলেট বিভাগের বন্ধ স্টেশনগুলো লোকবল নিয়োগের মাধ্যমে পুনরায় চালু করতে হবে।

সকল স্টেশনে টিকিট কালোবাজারিদের দৌরাত্ম্য রোধ করতে হবে।

ট্রেনের ইট পাথর মারা রোধ করতে হবে। সেই সাথে ট্রেনের ভেতরে চুরি ছিনতাই রোধে নিরাপত্তা জোরদার ও ফেরিওয়ালা সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ করতে হবে।
মেইল ট্রেন ও আন্ত:নগর ট্রেন সমুহে এসি ও প্রথম শ্রেণির আসন সংখ্যা বাড়ানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

মেইল ও আšত:নগর ট্রেনসমুহে পুরাতন ও জরাজীর্ণ বগি বদলে নতুন বগি সংযোজন করতে হবে।

ঢাকাস্থ কুলাউড়া উপজেলা সমিতির সভাপতি ও বাংলাদে সরকারের অতিরিক্ত সচিব এমএ রউফ ও ঢাকা-সিলেট রেলপথ উন্নয়ন বাস্তবায়ন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক এমকে সোহেল জানান, ইতোমধ্যে ৯ দফা দাবি দাওয়া বাস্তবায়নে রেলমন্ত্রীর কাছে বিষয়গুলো উত্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু তাতে কোন সুফল আসেনি। এখন ঢাকা-সিলেট রেলপথ উন্নয়ন বাস্তবায়ন পরিষদ দাবিগুলো প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদানের মাধ্যমে তুলে ধরা হবে।

তারা আরও জানান, প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেয়ার আগে গোটা সিলেটে এসব দাবি দাওয়ার স্বপক্ষে জনমত গড়ে তোলা হবে। ইতোমধ্যে তারই অংশ হিসেবে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল ও কুলাউড়া উপজেলা বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের সমন্বয়ে সভা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সবক’টি উপজেলায় জনমত গঠনের লক্ষ্যে সভা করা হবে। প্রধানমন্ত্রী সিলেটবাসীর দাবিগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পুরণ করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।#