আগস্ট ২০, ২০১৮
Home » নির্বাচিত » মিথ্যা ভাওতা ও অার মো‌দীজির কা‌ছে বেদনার চি‌ঠি

মিথ্যা ভাওতা ও অার মো‌দীজির কা‌ছে বেদনার চি‌ঠি

‌বিপ্লব কুম‌ার পোদ্দার, ২০ আগস্ট ::
ব্যা‌ক্তিগত জীব‌নে অা‌মি ক‌ঠিন এক প‌রি‌স্থি‌তির সাম‌নে দা‌ড়ি‌য়ে। অাজ প্রায় দুসপ্তাহ একজন লোক অামার সা‌থে অার ফো‌নে কথা বল‌ছেন না। জা‌নি না, অার কোন‌দিন তাঁর সা‌থে কথা বল‌তে পারব কি না।
অার এরই ম‌ধ্যে দুএকজন ভা‌লো লোক পৃ‌থিবী থে‌কে চীর‌বিদায় নি‌য়ে এক অজ‌ানা রওন‌া দি‌য়ে‌ছেন। নমস্কার তোমায় হে প্রিয় একজন মানবীয় গুনাবলীর মানুষ তু‌মি অটল বিহারী বাজ‌পেয়ী। অাজ অামা‌দের উপমহা‌দে‌শের রাজনী‌তি‌তে যখন তোমা‌কে খুব দরকার ছিল, তখন তু‌মি নেই। তোমার জায়গায় অা‌ছেন একজন। যি‌নি ভার‌তের অাগামী লোকসভার নির্বাচ‌নে শুধু অাসাম নয়, পু‌রো ভারত থে‌কে দু‌কো‌টি বাঙালীকে ভারত থে‌কে তা‌ড়ি‌য়ে দি‌বেন, এই শ্লোগান‌কে সাম‌নে রে‌খে বি‌জেপি তার অাগামী নির্বাচনী বৈতরনী পার হ‌তে চা‌চ্ছেন।
হয়তো আমার অনুরোধ আপনাদের কোনো কাজে আসবে না। তবুও আমি আমার ব্যক্তি  সত্তার কাছে পরিস্কার থাকার জন্য আমি লিখেই যাবো।  যেভাবে ইংরেজরা সিপাহীদের মধ্যে গরু এবং শুয়োরের মাংশের কথা বলে বিভেদ তৈরি করছি‌লো,ঠিক তেমনি ভাবে আসামে বাঙালিদের মধ্যে হিন্দুদের নাগরিকত্ব দিবে বলে বিভেদ তৈরি করে দিলো, ওরা। হায়রে আমার অবুঝ বাঙালি, কবে আর হবে বোধোদয়। তাই, আমি এবার সরাসরি জানতে চাই ,মোদীজির কাছে তার  বক্তব্য প্রসংগে। প্রথমত, আপনি বলেছেন, ইন্দিরা গান্ধীর এবং রাজীব গান্ধীর চুক্তি নিয়ে কাজ করছেন। তার সাথে আবার সুপ্রিম কোর্টের আদেশও আছে আপনাদের সাথে। আপনিতো নতুন ভারত গড়ার কথা বলেছেন। যেখানে পুরোনো ভারতের কোনো কিছু থাকার কথা নয়। তাহলে পুরোনো চুক্তি কেন উদহারণ হিসেবে উপস্থাপন করছেন ? এর সাথে সুপ্রিম কোর্ট নিয়ে যে কথা বলছেন।  তিনি তো স্ব-প্রনোদিত হয়ে আসাম সংক্রান্ত সব মামলা নিজের কাছে নিয়ে বিচার করলেন।  এটা কোন ধরনের  নিরপেক্ষতা? যে বিচারক নাকি আবার সেই আসামের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ছেলে।  আমার ক্ষুদ্র আইনি জীবনের একটি স্মৃ‌তির কথা মনে পড়ে গেলো।  আমি তখন আমার শ্রদ্ধেয় সিনিয়রকে দেখেছি। একটি মামলায় বিচারক অাসামীর অনেক দূর সমর্কের আত্বীয় হয়। তাই তিনি সেই মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন। এটাই আমাদের আইন অঙ্গনের রীতিনীতি। তাহলে এবার, আপনি নিশ্চই বুঝতে পার‌ছেন, আপনার সেই বিচারক কতটা নিরপেক্ষ। অার তার সেই বিচার কতটা নিরপেক্ষ হতে পারে? দ্বিতীয়ত, রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় তপোধীর বাবুকে হেনস্থা করার চেষ্টা কর‌ছেন। শুধু একটু লেখার ম‌াধ্য‌মে ভিন্নমত পোষন ও সত্যের প‌ক্ষে, মজলু‌মের প‌ক্ষে কথা বলার অপরা‌ধে।  আর আপনার বিজেপি যখন হিন্দু মুসলিম বিভাজন ছড়া‌চ্ছে তখন সেটা সুধী হয়ে যায় তাইতো? দুঃখিত মোদীজি, আপনার ইতিহাসতো আবার হিন্দু মুসলিম দাঙ্গা বাজানো আর সেই ফায়দা লুটে ক্ষমতায় থাকা, আবার বাজপাইজি আপনাকে রাজধর্ম পালন করে মনে করিয়ে দিয়েছি‌লেন। তিনি তখন আপনাকে বরখাস্ত করতে পারেননি। কারণ অাদভা‌নি জি আপনাকে শেল্টার দিয়েছিলেন আর সেই অাদভা‌নি‌জি‌কে আপনি মাঠের বাইরে পাঠিয়েছেন। সুতরাং আপনি সব পারেন। তাই এবার আপনাকে একটু আপনার বৈদেশিক নীতির কিছু সফলতার কথা তুলে ধরি। খুব বড় করে তো চয়নের সাথে অনিধারিত ভাবে মিটিং করে এলেন এবং বেশ ঢাকঢোল বাজিয়ে পাচার করলেন। কিন্তু ফলাফল কতখানি তাতো দেখলাম আজ আবার ইন্ডিয়া এবং চীনের সেনারা মুখোমুখি দাঁড়িয়ে। এবার বুঝে নিন আপনার কত দক্ষতা। এছাড়া পাকিস্তান, ভুটান , শ্রীলংকা , বার্মার দিকে তাকান- বুঝতে পারবেন আপনার সফলতার রেখা। আর একদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ বলছেন, বাংলাদেশের কোনো চিন্তা নেই নাগরিক পুঁজি নিয়ে, কিন্তু তিনি খোলাসা করেননি; এই চল্লিশ লক্ষ লোক কি করবেন? রাজনাথজি, ত্রিপুরার মুখমন্ত্রী বিপ্লব  বাবু যেন আপনার কি হয় আত্মীয়তায়? সেও কিন্ত এপার   বাংলা থেকে গিয়েছেন। জাতিসংঘ এসে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পক্ষে ন্যায়সঙ্গত ভাবে বললেন। কিন্তু আপনার দেশ নব বধূর মতো চুপ করে রইলেন। এটাও আমাদের মনে থাকবে। আবার যদি আমরা বাংলাদেশের মানুষরা বলি কোনো ভারতীয় আমাদের দেশে চাকরি করতে দিব না। তাদের প্রত্যেকের আইডি চেক করবো, তাহলে কি ভুল হবে? আমি একজন অত্যন্ত ক্ষুদ্র ব্য‌ক্তি হিসেবে আজ একটা অনুরোধ করি আপনাদের, যে কোনো দেশের সাথে সম্পর্ক করতে গেলে আগে সেই দেশের জনগণের সা‌থে সম্পর্ক গড়ুন।  তবেই আপনার বিদেশ নীতি সফল হবে, নতুবা যেভাবে আপনার দেশকে বিপদে নিয়ে যাচ্ছেন, সেখান থেকে ফি‌রে আসা অনেক কঠিন হবে। চেয়ে দেখুন আফগানিস্থানের দিকে. লেখা শেষ করবার পূর্বে বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ, সমালোচনা সহ্য করতে শিখুন, নাহলে একদিন আপনাকে অনেক বেশি মূল্য দিতে হতে পারে। এখনো সবকিছু আপনার হাতের বাইরে চলে যায়নি। চেষ্টা করুন দেখবেন আপনিই লাভবান হবেন।  সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে মুক্তি দিন।
প‌বিত্র ঈদ উল অাজহা সাম‌নে। কুরবা‌নীর যে ত্যা‌গের ম‌হিমা তা অামা‌দের সমাজ, রাজনী‌তি সহ সর্বত্র ছ‌ড়ি‌য়ে পড়ুক। সমা‌জে অাসুক পর‌মত সহ্য করবার মান‌সিকতা। ঈদ উদযাপন করুন অাপনার পা‌শের বাড়ীর অভুক্ত মানুষ‌কে নি‌য়ে। ঈদ হোক সবার, এই প্রার্থনায় অাগাম ঈদ মোবারক জা‌নি‌য়ে অাজ‌কে শেষ কর‌ছি।#
‌লেখক : যুক্তরাজ্যে কর্মরত অাইনজী‌বি ও সমাজকর্মী