নভেম্বর ৬, ২০১৮
Home » ব্রেকিং নিউজ » কমলগঞ্জে দীন নাথ স্মৃতি একাডেমীর ১৬তম মেধাবৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্টিত

কমলগঞ্জে দীন নাথ স্মৃতি একাডেমীর ১৬তম মেধাবৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্টিত

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ০৬ নভেম্বর ::

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার তিলকপুর দীন নাথ স্মৃতি একাডেমীর ১৬তম মেধা বৃত্তি পরীক্ষা মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় আব্দুল গফুর চৌধুরী মহিলা কলেজে অনুষ্টিত হয়। কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের মোট ১৫৮ জন শিক্ষার্থী মেধা বৃত্তি পরীক্ষায় অংশ নেন।

জানা যায়, মণিপুরী সংস্কৃতির অস্তিত্ব সংকটের সময়ে শেকড় চেতনায় উদ্দীপ্ত এক মহান পুরুষ দীন নাথ সিংহ। ১৯১০ সালের ১৬ এপ্রিল কমলগঞ্জ উপজেলার তিলক পুর গ্রামে তার জন্ম। পরাধীন ভারতীয় উপমহাদেশে একজন স্বাধীন চেতা সংগ্রামী, চিন্তাবিদ ও সমাজকর্মী ছিলেন তিনি। ইতিহাস খ্যাত ভানুবিলের কৃষক বিদ্রোহের সময় তার ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। ১৯৬০ সালে পাকিস্থান ক্ষত্রিয় মনিপুরী শান্তিরক্ষা কমিটি গঠন করে পূর্ব পাকিস্থান গভর্ণর এম মোনায়েম খানের সাথে আলোচনায় বসে পাকিস্থান সেন্সাসে মনিপুরীদের আলাদা জাতিস্বত্তা হিসাবে পরিচয় লাভের গৌরব এনে দেন। তিনি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সরকারের একজন উপদেষ্টা হিসাবে নিযুক্ত থাকার সুবাদে কমলগঞ্জে মণিপুরী তাঁত শিল্পের উন্নয়নের জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন, মণিপুরী নৃত্যকলার উন্নয়নের জন্য ললিতকলা একাডেমী স্থাপন, বিভিন্ন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্টানে মনিপুরীদের জন্য আলাদা কৌটা প্রচলন, সামরিক- আধা সামরিক বাহিনী ও পুলিশ বাহিনীতে মনিপুরীদের ভর্তির সুযোগ, বেতার ও টেলিভিশনে মনিপুরীদের সংস্কৃতির প্রচারের সুযোগ সৃষ্টি সহ মনিপুরীজাতীর কল্যানে বিভিন্ন জনহিতকর দাবী আদায়ে তার ছিল উল্লেখ যোগ্য ভূমিকা। তিলকপুরে দয়াময় সিংহ উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্টা ও কমলগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র স্থাপনও তারই একান্ত প্রচেষ্টার ফলশ্রুতি। ধর্মীয় ক্ষেত্রেও তার অবদান কোন অংশেই কম নয়। তিনি তীর্থধাম ভারতের বৃন্দাবনে ১টি ও নিজ গ্রাম তিলকপুরে ১টি মন্দির প্রতিষ্টা করেন। কলমের আন্দোলনেও তিনি ছিলেন স্বোচ্ছার । তার ইতিহাস সম্পর্কিত ও সমাজ সংস্কার মূলক অসখ্য লেখা জাগর, মেখলী, মণিপুরী, বিষ্ণুপ্রিয়া,যুগভেরী সহ বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। ১৯৩৩ সালে ইংরেজী ভাষায় প্রথম প্রকাশিত মণিপুরী পত্রিকার মূল উদ্যোক্তা দীন নাথ সিংহ নিজেই। ২০১৬ সালে প্রকাশিত “মণিপুরীদের ইতিহাস” নামক গবেষনাগ্রন্থটি তারই লেখা।

১৯৮৫ সালের ৭ই মে এই কিংবদন্তি মহাত্মার জীবনাবসান ঘটে। তারই স্মৃতি রক্ষার্থে ১৯৯৯ সালে গঠিত হয় তিলকপুর দীন নাথ সিংহ স্মৃতি একাডেমি। ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি এই একাডেমিটি পরিচালনা করছে। এই একডেমীর মাধ্যমেই গত ১৬ বছর ধরে অনুষ্টিত হচ্ছে এই মেধা বৃত্তি পরীক্ষা।#