- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্লাইডার

কুলাউড়ায় জলাতঙ্ক নিমুর্লে অবহিতকরণ সভা : ১৬ থেকে ২০ নভেম্বর কুকুরকে টিকাদান

এইবেলা, কুলাউড়া, ১৩ নভেম্বর :: ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে ব্যাপকহারে কুকুরের টিকাদান কর্মসূচি (এমডিভি) উপলক্ষে এক অবহিতকরণ সভা অনুষ্টিত হয়েছে। মঙ্গলবার ১৩ নভেম্বর দুপুরে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে সভা অনুষ্টিত হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: নুরুল হকের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: আবুল লাইছ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কুলাউড়া পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র জয়নাল আবেদিন বাচ্চু, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নেহার বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান সাহেদ, বরমচাল ইউপি চেয়ারম্যান আহবাব চৌধুরী শাহজাহান, রাউৎগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল, পৃথিমপাশা চেয়ারম্যান নবাব আলী বাকর খান, প্রেসক্লাব কুলাউড়ার সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আবু সাঈদ ফুয়াদ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক আব্দুল আহাদ ও প্রকল্পের এমডিবি ওয়াসিম রায়হান চৌধুরী প্রমুখ।

অবহিতকরন সভায় জানানো হয়, কুলাউড়ার ১৩ ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভায় আগামী ১৬ নভেম্বর থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত একযোগে পাঁচ দিনব্যাপী সকল কুকুরকে সরকারি খরচে জলাতঙ্ক রোগের প্রতিষেধক ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে। এ কর্মসূচি ফজরের নামাজের পর থেকে একটানা দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে। এছাড়াও প্রত্যোকটি ইউনিয়ন পরিষদের টিকাদান কেন্দ্রে পোষা কুকুর নিয়ে আসলেও ভ্যাকসিন দেয়া যাবে। এসময় কুলাউড়া হাসপাতালে কুকুরের কামড়ের প্রতিষেধক টিকা সরবরাহের দাবি জানান বক্তারা।

প্রকল্পের এমডিবি ওয়াসিম রায়হান চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে ২০১০ সালের আগে প্রতিবছর প্রায় ২০০০ মানুষ জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যেত এবং গবাদি প্রাণির মৃত্যুর সঠিক পরিসংখ্যান অজানা হলেও একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গবাদি প্রাণী এ রোগে মারা যায়। ২০১৬ সালের মধ্যে জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা শতকরা ৯০ ভাগ কমিয়ে আনা এবং ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে জলাতঙ্ক মুক্ত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এবং প্রাণিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় জলাতঙ্ক নির্মূল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করার কাজ চলছে। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশের সকল জেলা সদর হাসপাতালে জলাতঙ্ক নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। এসব কেন্দ্র থেকে কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত রোগীর আধুনিক ব্যবস্থাপনা এবং জলাতঙ্ক প্রতিষেধক টিকা বিনামূল্যে সরবরাহ করা হচ্ছে।

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *