- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, রাজনীতি, স্থানীয়, স্লাইডার

এই সরকারের পরিবর্তন প্রয়োজন- সুলতান মো. মনসুর

এইবেলা, কুলাউড়া, ১০ ডিসেম্বর ::

গণফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা, সাবেক এমপি ও ডাকসুর ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেছেন, বর্তমান সরকার লুটেরা সরকার, যারা বঙ্গবন্ধুর পিঠের চামড়া দিয়ে ডুগডুগি বাজিয়েছে সেই তেলকন্যা এখন বর্তমান সরকারে আছে। যারা বঙ্গবন্ধুকে হিটলার বলে গালি দিতো সেই সমাজতান্ত্রিক নেতা এখন মন্ত্রী হিসেবে এই সরকারে আছে। যে ট্যাংকের উপর উঠে গণবাহিনী সৃষ্টি করে বঙ্গবন্ধুর হত্যার পর সে এখন মন্ত্রীসভায় আছে। আরো আছে কিছু সুবিধাবাদী, কালোবাজারি, টাকাওয়ালা, ভন্ড, দরবেশ এই মন্ত্রীসভায় আছে। এই দেশে এই সরকারের পরিবর্তন প্রয়োজন। আর দেশ পরিবর্তন করতে হলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

সুলতান মনসুর সোমবার ১০ ডিসেম্বর বিকেলে কুলাউড়া ডাকবাংলো মাঠে নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, কুলাউড়ার মানুষ ১২ বছর যাবত আমার সেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। ২০০৮ সালের নির্বাচনে এই এলাকা থেকে আওয়ামী লীগ আমাকে এককভাবে মনোনয়ন দিয়েছিলো। কিন্তুু আপনারা যানেন, অদৃশ্য শক্তি এবং বাংলাদেশে আজ লুটপাট যারা করছে, গোষ্ঠীতন্ত্র ও ব্যক্তিস্বার্থ যারা কায়েম করতে চায় তারাই বাংলাদেশের এই মানুষকে আমার সেবা থেকে বঞ্চিত করেছে। আজকে তাই নির্বাচনী সভায় এসে দাঁড়িয়ে আমি কথা বলছি। বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিলো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নেতৃত্বে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে দিয়ে আমাকে এই এলাকায় পাঠানো হয়েছে। এমপি মানেই আমাদের রাজনীতি, এমপির জন্য আমার রাজনীতি না। বাংলাদেশে যতদিন বেঁচে থাকবো ঘুষ না দিয়ে আর ঘুষ না খেয়ে কতদুর যাওয়া যায় আমি দেখতে চাই একবার। আমরা বঙ্গবন্ধুর কর্মী। আমরা মুক্তি সংগ্রামের কর্মী। বঙ্গবন্ধুর আহবানে বীর উত্তম মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান ২৭ মার্চ কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। জেনারেল আতাউল গনি ওসমানী মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক ছিলেন। তিনি আমাদের সিলেটের কৃতি সন্তান। তাঁর জন্মদিন বা মৃত্যুবার্ষিকীতে একটা অনুষ্ঠানও এই সরকার করে না। আবার বলে এরা নাকি মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার। মুক্তিযোদ্ধা সার্টিফিকেট জাল থেকে শুরু করে ব্যাংকের টাকা লুট করা থেকে শুরু করে মুক্তিযোদ্ধাদের লাইসেন্স কালোবাজারি করে, ভূয়া লাইসেন্স দিয়ে এটা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের যাতনার সরকার। কাজেই আমি চেতনার সরকার, এই সরকার না।

উপজেলা বিএনপির (একাংশের) সভাপতি শওকতুল ইসলাম শকু’র সভাপতিত্বে ও পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক মুজিবুল আলম সোহেলের পরিচালনায় অনুষ্টিত জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক এমপি ও জাপা নেতা (জাফর) অ্যাডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খাঁন, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাড. মুজিবুর রহমান মুজিব, মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান, কুলাউড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র কামাল উদ্দিন আহমদ জুনেদ, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি পৌর কাউন্সিলর জয়নাল আবেদীন বাচ্চু, উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক রেদওয়ান খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ, ইউপি চেয়ারম্যান কমর উদ্দিন আহমদ কমরু ও আব্দুল জলিল জামাল, পৌর বিএনপি নেতা আব্দুল গফ্ফার চৌধুরী, উপজেলা শ্রমিকদল সভাপতি সিরাজ উদ্দিন বলু, পৌর ছাত্রদলের প্রতিষ্টাতা সম্পাদক মান্না বখ্শ, জমিয়তুল নেতা মুফতি আশরাফুল হক, জেলা যুবদলের সহসভাপতি জুবের আহমদ খান, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক কাওছার আহমদ নিপার, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সারওয়ার আলম বেলাল, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন আহমদ, উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রেজাউল আলম ভূইয়া খোকন, সহ-সভাপতি মুসা আহমদ সুয়েট, সাধারন সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন মোল্লা, পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক রাজু আহমদ প্রমুখ।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *