ডিসেম্বর ২০, ২০১৮
Home » খেলা » সিরিজ সমতায় বাংলাদেশ

সিরিজ সমতায় বাংলাদেশ

এইবেলা, ক্রিকেট, ২০ ডিসেম্বর ::

সাকিব আল হাসানের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩৬ রানে হারিয়ে সিরিজ সমতায় ফিরেছে বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে ২৬ বলে অপরাজিত ৪২ রান করার পাশাপাশি বোলিংয়ে ৪ ওভারে ২১ রানে ৫ উইকেট শিকার করেন সাকিব। তার অসাধারণ পারফরম্যান্সে পিছিয়ে থেকেও দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে জিতে সিরিজে ফিরেছে বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করে লিটন দাসের ৬০ ও সাকিব-মাহমুদউল্লাহর ৪২ ও ৪৩ রানে ভর করে ৪ উইকেটে ২১১ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে বাংলাদেশ।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে সাকিবের ঘূর্ণি বলে বিভ্রান্ত হয়ে ১৯.২ ওভারে ১৭৫ রানে অলআউট উইন্ডিজ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫০ রান করেন অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল। এছাড়া ১৯ বলে ৩৬ রান করেন ওপেনার শাই হোপ। বাংলাদেশ দলের হয়ে ৪ ওভারে ২১ রানে ৫ উইকেট শিকার করেন সাকিব।

এদিন টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ দল। উদ্বোধনীতে লিটন দাসের সঙ্গে ৪২ রানের জুটি গড়ে সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল (১৫)। এরপর তিনে ব্যাটিংয়ে নামা সৌম্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে ফের ৬৮ রানের পার্টনারশিপ গড়েন লিটন দাস। এই জুটিতে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নেন লিটন।

১ উইকেটে ১১০ রান করা বাংলাদেশ এরপর ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায়। মাত্র ১০ রানের ব্যবধানে নেই সৌম্য, লিটন ও মুশফিকের উইকেট। সৌম্য এবং লিটন ৩২ ও ৬০ রান করে করলেও মাত্র ১ রানে ফেরেন মুশফিকুর রহিম।

এরপর পঞ্চম উইকেট জুটিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে সঙ্গে নিয়ে ৪২ বলে ৯১ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন সাকিব আল হাসান। তাদের কল্যাণে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ২১১ রানের পাহাড় গড়ে বাংলাদেশ।

এর আগে চলতি বছরের আগস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাঠে টি-টোয়েন্টির সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে সর্বোচ্চ ১৮৪/৫ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে ডিএল মেথডে ১৯ রানে জয় পায় সাকিব আল হাসানের দল।

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দলীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৫ রান। যেটা চলতি বছরের মার্চে শ্রীলংকার বিপক্ষে কলম্বোয় ত্রিদেশীয় সিরিজে সংগ্রহ করেছিল টাইগাররা।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১৮ রানে ওপেনার ইভিন লুইসের উইকেট হারানো উইন্ডিজকে খেলায় ফেরান ফর্মের তুঙ্গে থাকা শাই হোপ। ওয়ানডে সিরিজে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি করা ক্যারিবীয় এই ওপেনার একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন। তার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে প্রথম চার ওভারে ১ উইকেটে ৫২ রান তুলে নেয় উইন্ডিজ।

ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা শাই হোপ এবং নিকোলাস পুরানের মধ্যকার জুটি ভাঙেন সাকিব। নিজের প্রথম ওভারে বোলিংয়ে এসেই পুরানকে ফেরান সাকিব। এরপর একেএকে পাঁচটি উইকেট তুলে নেন সাকিব। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে শেষ দিকে মোস্তাফিজুর রহমান দুটি এবং শেষ ব্যাটসম্যান থমাসের উইকেট তুলে নিয়ে জয়ে নিশ্চিত করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ২১১/৪ (লিটন ৬০, মাহমুদউল্লাহ ৪৩*, সাকিব ৪২*, সৌম ৩২)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ১৯.২ ওভারে ১৭৫/১০ (পাওয়েল ৫০, হোপ ৩৬; সাকিব ৫/২১, মোস্তাফিজ ২/৫০)।

ফল: বাংলাদেশ ৩৬ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা: সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)

আগামী শনিবার সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচটি মিরপুরের একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে।