- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

বড়লেখা থেকে চুরি যাওয়া অটোরিকশা ছাতকে উদ্ধার : ৩ চোর রিমান্ডে

এইবেলা, বড়লেখা, ১৩ ফেব্রুয়ারি ::

বড়লেখা থেকে চুরি হওয়া সিএনজি চালিত অটোরিকশা উদ্ধার ও আন্ত:জেলা চোর চক্রের ৩ সদস্যকে সোমবার সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে বড়লেখা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে বড়লেখার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপির তারাদরম গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে বাবুল আহমদ (৩৫), পূর্ব চন্ডিনগর গ্রামের মৃত আজই মিয়ার ছেলে আব্দুল হান্নান (৩৪) ও সিলেটের জালালাবাদ থানার মৃত উস্তার আলীর ছেলে মাছুম আহমদ (৩৫)। গত ২৬ জানুয়ারি অটোরিকশাটি চুরি হয়। এদিকে আদালত থেকে পুলিশ গ্রেফতার চোরদের ২ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে।

বড়লেখা থানার এসআই মিন্টু চৌধুরী ও এএসআই তরুণ মজুমদার প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেফতার ও অটোরিকশা উদ্ধার করেন। গ্রেফারকৃতদের মঙ্গলবার ২ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) তাদের রিমান্ড শেষ হবে।

জানা গেছে, গত ২৬ জানুয়ারি রাতে মামলার এজাহার নামীয় পলাতক আসামি মুহিবুর রহমানসহ কয়েকজন চোর বড়লেখা পৌর শহরের উত্তর চৌমুহনী এলাকা থেকে যাত্রীবেশে শ্রমিক নেতা রফিক উদ্দিনের সিএনজি চালিত অটোরিকশায় ওঠে। উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপির তারাদরম এলাকায় চালককে মারধর করে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যান। স্থানীয়রা উদ্ধার করে চালককে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। চালক মুহিবুর রহমানকে চেনে ফেলায় সে তার নাম গাড়ির মালিককে জানায়। স্থানীয়ভাবে অটোরিকশাটি উদ্ধারের চেষ্টা করা হলেও উদ্ধার হয়নি। এরপর অনেক ৪ ফেব্রুয়ারি শ্রমিক নেতা রফিক উদ্দিন উপজেলার তারাদরম গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে বাবুল আহমদ (৩৫), তার ভাই মুহিবুর রহমান (২২), মুড়াউল গ্রামের আব্দুস শুক্কুরের ছেলে সুহেল আহমদ (২২) ও তারাদরম এলাকার বেলাল আহমদের (২৬) নাম এবং কয়েকজনকে অজ্ঞাত রেখে থানায় মামলা করেন। মামলা তদন্তের দায়িত্ব পান এসআই মিন্টু চৌধুরী। তিনি অটোরিকশাটি উদ্ধার ও চোরচক্রকে গ্রেপ্তারে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে চোরদের অবস্থান সনাক্ত করেন। ১১ ফেব্রুয়ারি প্রথমে সিলেট থেকে স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় বাবুল আহমদকে গ্রেপ্তার করেন। তার দেয়া তথ্যে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলা থেকে মাছুম আহমদ ও আব্দুল হান্নানকে গ্রেপ্তার করেন। পরে মাছুম ও হান্নানের দেয়া তথ্যমতে ছাতকের ফেরিঘাট এলাকা থেকে অটোরিকশাটি উদ্ধার করা হয়। ১২ ফেব্রুয়ারি ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদনসহ তিন আসামীকে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করেন। আদালতের হাকিম হরিদাস কুমার শুনানি শেষে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আসামিদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বৃহস্পতিবার এদের রিমান্ড শেষ হবে।

এসআই মিন্টু চৌধুরী বুধবার সন্ধ্যায় জানান, ‘চুরির পর অটোরিকশার মালিক বিষয়টি পুলিশকে জানান। ৪ জনের নামে মামলা করেন। প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান চালিয়ে ৩ জনকে গ্রেফতাার করা হয়েছে। তাদের দেয়া তথ্যে অটোরিকশা উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার সকলেই আন্ত:জেলা চোর চক্রের সক্রিয় সদস্য। তাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।’#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *