ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৯
Home » খেলা » কুলাউড়ায় ক্রিকেট একাডেমীর অভিভাবক সমাবেশ

কুলাউড়ায় ক্রিকেট একাডেমীর অভিভাবক সমাবেশ

এইবেলা, কুলাউড়া, ১৫ ফেব্রুয়ারি ::

ক্ষুদে ক্রিকেটার থেকে প্রতিভাবান ক্রিকেটার তৈরিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে ইষ্ট কোষ্ট গ্র“প কুলাউড়া ক্রিকেট একাডেমী। জাতীয় পর্যায়ে খেলোয়াড় তৈরিতে এই একাডেমী মূখ্য ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছেন কুলাউড়ার ক্রিকেট বিশ্লেষকরা।

ইষ্ট কোষ্ট গ্র“প কুলাউড়া ক্রিকেট একাডেমীর খেলোয়াড়দের অভিভাবকদের নিয়ে এক অভিভাবক সমাবেশ ১৫ ফেব্র“য়ারী শুক্রবার বিকেলে একাডেমী মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। একাডেমীর চেয়ারম্যান রফি আহমদ তানিমের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রভাষক সিপার আহমেদ ও আমিন হোসেন, ব্যাংকার সুয়েবুর রহমান, জেলা সহকারী কোচ (বিসিবি) রাসেল আহমদ, প্রথম আলো প্রতিনিধি কল্যাণ প্রসূণ চম্পু, কালের কণ্ঠ প্রতিনিধি মাহফুজ শাকিল, সাবেক ক্রিকেটার ফরহাদ চৌধুরী, বিশিষ্ট ক্রীড়ানুরাগী মাসুদ হোসাইন, এ্যাডভোকেট শাকির আহমদ তানিম, একাডেমীর পরিচালক আলাউদ্দিন শামীম, অভিভাবক ইফফাত খান ইপা। জেলা সহকারী কোচ (বিসিবি) রাসেল আহমদ তাঁর বক্তব্যে বলেন, কুলাউড়ার আবুল হাসান রাজু জাতীয় দলে প্রতিভার সাক্ষর রেখেছে। রাজুর পরে কুলাউড়া থেকে আর কোন খেলোয়াড় জাতীয় দলে খেলতে পারেনি তবে এই একাডেমীর যে সাফল্যে হচ্ছে আমার মনে হচ্ছে একদিন আরো অনেক খেলোয়াড় এই একাডেমী থেকে তৈরি হবে। সমাবেশে উপস্থিত অভিভাবকরা তাদের বক্তব্যে বলেন, খেলাধুলার মাধ্যমে ভালো পথে থাকা যায়, আমরা আমাদের ছেলেমেয়েকে এই একাডেমীতে নিয়ে এসেছি। প্রতিটি পরিবারের বাবার পাশাপাশি মায়েরা যদি বেশি উৎসাহিত হয় তবে কুলাউড়া ক্রিকেট একাডেমী থেকে জাতীয় দলের খেলোয়াড় তৈরি হওয়া সম্ভব। এর জন্য প্রয়োজন আমাদের সকল অভিভাবকদের উৎসাহ ও প্রচেষ্ঠা। আমাদের সন্তানেরা এই একাডেমীর মাধ্যেমে একদিন জাতীয় দলে খেলবে সেই স্বপ্নে আমরা বিভোর।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারি ৭০ জন প্রশিক্ষণার্থী নিয়ে কুলাউড়া ক্রিকেট একাডেমী যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানে ১১০ জন প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। বুধবার ও রবিবার ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। সিলেট বিভাগীয় কোচ (বিসিবি) মাহমুদ ইমন, মৌলভীবাজার জেলা সহকারী কোচ (বিসিবি) রাসেল আহমদ ও স্থানীয় কোচ আশরাফুর রহমান শাওন তাদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ দিয়ে যাচ্ছেন। মাত্র এক বছরের মাথায় একাডেমীর ৬ জন খেলোয়াড় জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে নিয়মিত খেলে যাচ্ছে।

একাডেমীর ক্রিকেটার কাওছার আহমদ বিভাগীয় পর্যায়ে অনুর্ধ্ব ১৪ দলে সিলেট বিভাগের পক্ষে বর্তমানে ফরিদপুরে খেলছেন। আরিফুল ইসলাম অনুর্ধ্ব ১৬তে সিলেট বিভাগীয় পর্যায়ে খেলার জন্য ডাক পেয়েছেন। জনি লাল ইতোমধ্যে অনুর্ধ্ব ১৮ দলে বিভাগীয় পর্যায়ে খেলে এসেছেন। আবিদ ইসলাম, শ্রাবণ আহমদ ও মারজান ইসলাম অনুর্ধ্ব ১৬তে জেলা পর্যায়ে নিয়মিত খেলেছেন।

একাডেমী প্রতিষ্টার কিছুদিন পর ইষ্ট কোষ্ট গ্র“প এর এমডি ও বিসিবির পরিচালক তানজিল চৌধুরী একাডেমীর পরিচালনার দায়িত্মভার নিয়ে একাডেমীর নামকরন করেন ইষ্ট কোষ্ট গ্র“প কুলাউড়া ক্রিকেট একাডেমী। জাতীয় দলের খেলোয়াড় মোহাম্মদ আশরাফুল গতবছর এখানে এসে খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ দিয়ে গেছেন। এছাড়া বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক শফিউল আলম নাদেল, মৌলভীবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মিছবাউর রহমান, বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির সভাপতি মোস্তফা মামুন একাডেমী পরিদর্শন করেছেন।#