মার্চ ৬, ২০১৯
Home » জাতীয় » বড়লেখায় কালভার্টের স্ল্যাব ভাঙ্গার ২ বছর : দেখার কেউ নেই !

বড়লেখায় কালভার্টের স্ল্যাব ভাঙ্গার ২ বছর : দেখার কেউ নেই !

আব্দুর রব, বড়লেখা, ০৬ মার্চ ::

বড়লেখায় জনগুরুত্বপূর্ণ একটি গ্রামীণ রাস্তার কালভার্টের স্ল্যাব ভেঙ্গে গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় প্রায় ২ বছর ধরে এ রাস্তায় চলাচলকারী ৫-৬ হাজার মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। কালভার্টের গর্তে পড়ে প্রায়ই অনেকে আহত হলেও তা মেরামতে কর্তৃপক্ষের নেই কোন নজর ।

সরেজমিনে জানা গেছে, উপজেলার কাঠালতলী-শিমুলিয়া ভায়া শহীদাবাদ শেওরাডিগা-তেরাকুড়ি এলজিইডি রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন দক্ষিণভাগ উত্তর ও সুজানগর ইউনিয়নের ৫-৬ হাজার মানুষ চলাচল করেন। এ রাস্তার শহীদাবাদ জামে মসজিদের সামনের কালভার্ট প্রায় ৪০ বছর পূর্বে নির্মাণ করা হয়। স্থানীয় বাসিন্দা জুয়েল আহমদ, হাজী মোস্তাকিন আলী, আবুল হোসেন, নুরুল হক প্রমূখ জানান, প্রায় ২ বছর আগে কালভার্টের স্ল্যাবে ভাঙ্গন দেখা দেয়। মেরামত না করায় আস্তে আস্তে দুই পাশের ভাঙ্গন বেড়ে একসময় কালভার্টটি যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠে। রাতে অনেক পথচারী ও যানবাহন দুর্ঘটনা কবলিত হচ্ছে। এতে জনসাধারণ চরম দুর্ভোগ পোহালেও তা মেরামতের উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় বাসিন্দা ও প্রথম শ্রেণীর ঠিকাদার মহিউদ্দিন আহমদ গোলজার জানান, প্রায় দেড়বছর আগে ব্যক্তিগতভাবে তিনি ভাঙ্গনের ওপর দুইটি ষ্টীলের প্লেইট বসিয়ে দেয়ায় পথচারীরা কোনমতে যাতায়াত করছেন। কিন্তু কোনধরণের যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। দুরের লোকজন গাড়ি নিয়ে এসে এখানে নেমে পায়ে হেটে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে। তিনি অনেকবার উপজেলা প্রকৌশলী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে যেকোন প্রকল্পের মাধ্যমে স্ল্যাবটি নির্মাণের অনুরোধ জানিয়েছেন। কিন্তু তারা কেউ এব্যাপারে উদ্যোগ নেননি।

উপজেলা প্রকৌশলী বিদ্যুৎ ভুষণ পাল জানান, স্ল্যাব নির্মাণের জন্য এলজিইডি’র কোন স্কীম নেয়ার সুযোগ নেই। এলজিএসপি’র স্কীমে অর্ন্তভুক্ত করার জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অনেক আগেই বলেছেন। তিনি রাজিও হয়েছেন। জনদুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।#