- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

আত্রাইয়ে চাঞ্চল্যকর জুলেখা হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই, ০৯ মার্চ ::

নওগাঁর আত্রাইয়ে চাঞ্চল্যকর জুলেখা হত্যাকান্ডের রহস্য অবশেষে উন্মোচিত হয়েছে।

হত্যাকান্ডের নেপথ্যে রয়েছে সাবেক স্বামী। থানা পুলিশের সঠিক পদক্ষেপের কারণে লোমহর্ষক এ হত্যাকান্ডের মূলরহস্য উন্মোচিত হয়েছে।

আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মোবারক হোসেন জানান, গত ২০ ডিসেম্বর উপজেলার বড়কালিকাপুর তিন নাম্বার সুইচ গেটের নিচে জুলেখা খাতুনকে জবাই করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পর থেকেই পুলিশ মোবাইল নাম্বার টাকিং ও লোকেশনের মাধ্যমে তদন্ত করতে মাঠে নামে। গত সোমবার ঘাতক বেলাল হোসেনকে তিন দিনের রিমান্ডে থানায় নিয়ে আসে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ তিন দিনের রিমান্ডে ঘাতক বেলাল হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে একপর্যায়ে সে নিজে এই লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে জবান বন্দি দেয়।

ঘাতক বেলাল হোসেনের দেয়া জবান বন্দি থেকে জানা যায়, গত ২০১৭ সালের ২২ জুলাই নওগাঁ সদর থানার গোপাই গ্রামের মানিক প্রামানিকের মেয়ে জুলেখা খাতুন (৩০) এর সাথে পার্শ্ববর্তী মান্দা উপজেলার চকবালু গ্রামের জনাব আলী মন্ডলের ছেলে বেলাল হোসেনের বিয়ে হয়। সংসার জীবনের কয়েক কছর অতিবাহিত হওয়ার পর তাদের ডিভোর্স হয়। কিন্তু তারপরেও মোবাইলে সম্পর্ক বজায় রাখে ঘাতক স্বামী বেলাল হোসেন। তারই ধারাবাহিকতায় সে গত ২০ ডিসেম্বর মোবাইলে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ঢাকা গার্মেন্টস থেকে জুলেখা খাতুনকে নিয়ে আসে। জুলেখা নওগাঁ পৌছালে তাকে নিয়ে রাত ১০টার দিকে সে আত্রাই উপজেলার বড়কালিকাপুর তিন নাম্বার সুইচ গেটে নিয়ে এসে তার সাথে দৈহিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে চাই। এতে জুলেখা আবারও বিয়ে না করে দৈহিক মেলামেশায় বাঁধা সৃষ্টি করে। বাঁধা সৃষ্টির এক পর্যায়ে ঘাতক বেলাল হোসেন ধাক্কা দিয়ে জুলেখা খাতুনকে সুইচ গেটের নিচে ডোবাই ফেলে দেয়। পরে তাকে ধারালো চাকু দিয়ে জবাই করে সেখান থেকে পালিয়ে যায়। #

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *