মার্চ ১১, ২০১৯
Home » অর্থ ও বাণিজ্য » কুলাউড়ায় সড়ক প্রশস্থকরণের অজুহাতে শতাধিক অপরিপক্ক গাছ কাটার অভিযোগ সওজের বিরুদ্ধে

কুলাউড়ায় সড়ক প্রশস্থকরণের অজুহাতে শতাধিক অপরিপক্ক গাছ কাটার অভিযোগ সওজের বিরুদ্ধে

বনবিভাগ ও উপকারভোগীদের বাঁধা

এইবেলা, কুলাউড়া, ১১ মার্চ ::

কুলাউড়া উপজেলার কুলাউড়া-রবিরবাজার সড়ক প্রশস্থকরণের অজুহাতে শতাধিক অপরিপক্ক একাশিয়া প্রজাতির গাছ কাটার অভিযোগ সড়ক ও জনপথ বিভাগের বিরুদ্ধে। গত ২ দিন থেকে বুলডোজার দিয়ে সড়কের চৌধুরীবাজার থেকে বড়কাপন এলাকায় রাস্তার দু’পার্শ্বের কমপক্ষে ১শ গাছ কাটার অভিযোগ করেছেন উপকারভোগী সদস্য ও কুলাউড়া বন বিভাগ। উক্ত গাছের বাজার মূল্য কমপক্ষে ২ লক্ষ টাকা হবে বলে উপকারভোগীরা জানিয়েছেন।

বনায়নের উপকারভোগী দেলোয়ার হোসেন জানান, কোন ধরনের নোটিশ না দিয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: রাশেদুল হক রোববার ১০ মার্চ কুলাউড়ায় এসে ঠিকাদারকে গাছ কেটে রাস্তা বড় করার নির্দেশ দিলে ঠিকাদারের লোকজন গাছগুলো বুলডোজার দিয়ে উপড়ে রাস্তা প্রশস্থকরণ কাজ করতে থাকেন। উপকারভোগী সদস্যরা বন বিভাগকে বিষয়টি অবহিত করে এবং সোমবার ১১ মার্চ দুপুরে গিয়ে গাছ কাটতে নিষেধ করেন। এতে শতাধিক গাছ কাটা হয়েছে। উপকারভোগিদের ২ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

বন বিভাগের কুলাউড়া সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা রিয়াজ উদ্দিন জানান, কোন ধরনের নোটিশ না দিয়েই সড়ক ও জনপথ বিভাগের লোকজন সড়ক বনায়নের অপরিপক্ক গাছগুলি কেটে ফেলেছে। এতে সরকারের মোটা অংকের টাকার লোকসান হয়েছে। রেঞ্জ অফিসার মানিক রঞ্জন দেসহ অন্যান্য স্টাফরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ঠিকাদারের প্রতিনিধিকে গাছ কাটা বন্ধ রাখতে বলেছি এবং আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

গাছ কাটার বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মো: রাশেদুল হক জানান, ৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে কুলাউড়া স্কুল চৌমুহনী থেকে রবিরবাজার বিলেরপার এবং ব্রাম্মনবাজার টু টিলাগাঁও রাস্তা প্রশস্থকরণের কাজ আরও ৪ মাস পূর্বে শুরু করার কথা ছিল। কিন্তু রাস্তার পার্শ্বে গাছ থাকায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে গাছ সরানোর জন্য পত্র দিয়ে কোন সাড়া না পাওয়ায় রাস্তা প্রশস্থকরণের স্বার্থে কয়েকটি গাছ কাটতে হয়েছে। বনবিভাগ আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সকল কাজ সরিয়ে ফেলবেন বলায় আপাতত:রাস্তা প্রশস্থকরণের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। #