- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, রাজনীতি, স্থানীয়, স্লাইডার

ত্রিমুখি হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা তিন উপজেলায়

কুলাউড়া, বড়লেখা ও জুড়ী/নৌকার পথের কাটা বিদ্রোহীরা

এইবেলা, কুলাউড়া, ১৬ মার্চ ::

মৌলভীবাজার জেলার ৭ উপজেলার মধ্যে ৬টিতে আগামী ১৮ মার্চ সোমবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তন্মধ্যে কুলাউড়া, বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলায় ত্রিমুখি হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। এ তিনটি উপজেলায় নৌকার পথের কাটা হয়ে দাড়িয়েছে আওয়ামীলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। বিদ্রোহীদের কঠিন চ্যালেঞ্জে নৌকার কান্ডারিরা অনেকটা বেকায়দা রয়েছেন।

এদিকে জেলার সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী কামাল আহমদ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিায় জয়ের মালা পরতে যাচ্ছেন।

কুলাউড়া উপজেলায় নৌকার কান্ডারি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আসম কামরুল ইসলামকে চ্যালেঞ্জে ফেলেছেন দলের স্বতন্ত্র প্রার্থী কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক একেএম সফি আহমদ সলমান। তিনি জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের হাটে-ঘাটে-মাটে গিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের একাট্টা করার পাশাপশি উপজেলা নির্বাচনে সমর্থন চাওয়া শুরু করেন। সেই থেকে মানুষের দ্বারে দ্বারে বার বার যাওয়ার কারনে বর্তমানে তিনি অনেকটা সুবিধাজনক অবস্থানে আছেন।

তবে অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী ও পৃথিমপাশা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নবাব আলী নকি খানও কোনক্রমে পিছিয়ে নেই। উপজেলার দক্ষিণাঞ্চলে তিনি একক প্রার্থী হওয়ায় এই দুই প্রার্থীকে চ্যালেঞ্জে ফেলেছেন। যারফলে আওয়ামী লীগের এই দুই প্রার্থীকে ধরাশায়ী করতে পারে আঞ্চলিকতা। এ উপজেলার সাধারণ ভোটাররাও মুখ খুলতে চাইছেন না নির্বাচন নিয়ে। ফলে ভোট ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে কুলাউড়ায় নির্বাচনী জরিপ সবার জন্য কঠিন থেকে কঠিনতর হচ্ছে। তবে শেষ মেষ ত্রিমুখি হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে যে কেউ বিজয়ী হতে পারেন এমনটি ধারণা সচেতন মহলের।

জুড়ী উপজেলায় নৌকার কান্ডারি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান গুলশান আরা চৌধুরী মিলির প্রথম ও প্রধান চ্যালেঞ্জ তারই দেবর হল্যান্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোঈদ ফারুক। ভাবির জয়ের প্রধান বাঁধা এখন দেবর আব্দুল মোঈদ ফারুক। বিষয়টি নিয়ে গোটা উপজেলায় চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

ভোটাররাও এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকলেও অনেকে জুড়ীর রূপকার হিসেবে ব্যাপক পরিচিত সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মরহুম এমএ মোমিত আসুকের প্রতিচ্ছবি দেখছেন মুক্তিযোদ্ধা এমএ মোঈদ ফারুকের মধ্যে। স্বতন্ত্র উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী (বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান) কিশোর রায় চৌধুরী মনি দেবর-ভাবিকে মাঠে রেখে গোল দিলে অবাক হওয়ার কিছুই নেই বলে সাধারণ ভোটাররা মন্তব্য করছেন।

বড়লেখা উপজেলায় নৌকার প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সুন্দর রফিকুল ইসলাম সুন্দরকে দুইজন হ্যাভিওয়েট আওয়ামীলীগ নেতা চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন। এদের একজন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন এমপির ভাগ্নে। অপরজন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মু. কমান্ডার সিরাজ উদ্দিন। পরিবেশ মন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকায় ৩ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনাই রয়েছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *