মার্চ ২৪, ২০১৯
Home » জাতীয় » বাস থেকে ফেলে সিকৃবি ছাত্র ওয়াসিমকে হত্যা: মামলা করবে না পরিবার

বাস থেকে ফেলে সিকৃবি ছাত্র ওয়াসিমকে হত্যা: মামলা করবে না পরিবার

এইবেলা, সিলেট, ২৪ মার্চ ::

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ঘোরী মো. ওয়াসিমকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত পলাতক বাস হেলপার মাসুক আলীকে (৩৮) আটক করেছে পুলিশ।

ওয়াসিমসহ ১১ জন শিক্ষার্থী হবিগঞ্জের দেবপাড়ায় বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। শনিবার বিকালে ফেরার পথে তারা ময়মনসিংহ-সিলেট রোডের উদার পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। ভাড়া নিয়ে বাসের হেলপারের সঙ্গে তাদের বিবাদ হয়। একপর্যায়ে বাসের হেলপার ওয়াসিমসহ আরেকজনকে ধাক্কা দেন। এতে ওয়াসিম বাস থেকে পড়ে যান এবং চাকা তার পায়ের ওপর দিয়ে চলে যায়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা রাকিব হোসেন নামে আরেকজন শিক্ষার্থী বাস থেকে লাফ দিয়ে নামেন।

ওয়াসিমকে দ্রুত প্রাইভেটকারে করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাস্তায় তার মৃত্যু হয়। রাকিব হোসেনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা বাসটি আটক করেন। ততক্ষণে বাসের চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। পরে মৌলভীবাজার সদর থানা পুলিশ বাসটি জব্দ করে।

এদিকে শনিবার রাত ২টার দিকে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের সিংচাপইড় গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো.বরকতুল্লাহ খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঘাতক হেলপার মাসুক আলীকে মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে তার শ্বশুরবাড়ী সিংচাপইড় গ্রাম থেকে আটক করা হয়। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে বাসের সুপারভাইজারকে ঘটনার জন্য দায়ী করে। তাকে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

শনিবার রাতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই ওয়াসিমের মরদেহ ওসমানী হাসপাতাল থেকে নিয়ে যায় পরিবার। রোববার দুপুরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে জানাযা শেষে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়।

 এদিকে নিহতের চাচা মফিজুর রহমান বলেন,আমাদের সবার আদরের সন্তানটি চলে গেছে। আমাদের ছেলেকে তো আর ফিরে পাব না, তাই মামলা করে কি করব? আমাদের ক্ষতিপূরণেরও দরকার নেই।

তবে মৌলভীবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুহেল আহাম্মদ বলেছেন, এটি একটি হত্যাকান্ড। তাই পরিবারকে মামলা করতে অনুরোধ করা হবে। পরিবার রাজী না হলে পুলিশই বাদী হয়ে মামলা দায়ের করবে।#