- জাতীয়, তথ্য-প্রযুক্তি, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

কুলাউড়ায় বিতরণকৃত বেশির ভাগ স্মার্ট কার্ড ভুলে ভরা

এইবেলা, কুলাউড়া, ১২ এপ্রিল ::

কুলাউড়া উপজেলায় গত ৯ এপ্রিল থেকে স্মার্ট কার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে। বিতরণকৃত বেশির ভাগ স্মার্ট কার্ড ভুলে ভরা। হাতে পাওয়া এসব স্মার্ট কার্ড নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মানুষ। ফের সংশোধনী, নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ, সংশোধনের নামে হয়রানি- এসব দুর্ভোগের কথা ভেবেই মানুষ হতাশ।

কুলাউড়া পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও পৌর শহরের ব্যবসায়ী মো. খোকন। কার্ড হাতে নিয়ে দেখেন মহিলার ছবি ও স্বাক্ষর। ছবির মহিলার নাম দিলারা বেগম স্বাক্ষরেও দিলারা বেগম লেখা। মো. খোকনের জাতীয় পরিচয়পত্রে নিজের ছবিসহ সব তথ্য ঠিক ছিলো। কিন্তু নতুন পাওয়া স্মার্ট কার্ডে নাম ঠিকানা ঠিক থাকলেও নিজের ছবির জায়গায় দিলারা বেগম নামে এক নারীর ছবি ও স্বাক্ষর করা।

এদিকে খোকনের কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষরের ওই নারী দিলারা বেগম পৌর শহরের ৩ নং ওয়ার্ডেরই বাসিন্দা। দিলারা নিজের নামে যে কার্ড পেয়েছেন সেটি ঠিক আছে এবং তাতে কোন ভুল নেই।
এছাড়াও একাধিক নারী ও পুরুষের নতুন স্মার্ট কার্ডে জন্মস্থান মৌলভীবাজারের পরিবর্তে মানিকগঞ্জ, জন্মতারিখ ও পিতার নামের সাথে নারীর নাম সংযুক্ত করে ভুল তথ্য দিয়ে দেয়া হচ্ছে স্মার্ট কার্ড।

পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ডে বাসিন্দা ও প্রবীন মুরুব্বী মো. আব্দুল আউয়ালের বাংলা নাম সঠিক হলেও ইংরেজি নামে ভুল। শামছুননাহার বেগমের স্মার্ট কার্ডে পিতার নাম ‘আব্দুল মতিন বেগম’ লেখা হয়েছে। অর্থাৎ আব্দুল মতিনের নামের সাথে বেগম যুক্ত করা হয়েছে। পৌর এলাকার ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আবির আহমদের স্মার্ট কার্ডে জন্মস্থান মৌলভীবাজারের স্থলে মানিকগঞ্জ লেখা হয়েছে। ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বাসিন্দা তাসলিমা সুলতানা নামে জন্ম তারিখের সাল ১৯৯৪ এর স্থলে ১৯৩৫ লেখা হয়েছে। অনেক পুরাতন নিবন্ধনকারী অনেক পুরাতন জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্ডধারী নতুন স্মার্ট কার্ড পাননি।

এদিকে প্রবাসী অধ্যূষিত কুলাউড়া উপজেলায় দেশের বাইরে অবস্থানরতদের জন্য থাকছে বিশেষ ব্যবস্থা। বিদেশ থেকে দেশে আসার পর যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র আছে তারা সেটি জমা দিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে স্মার্ট কার্ড গ্রহণ করতে পারবে বলে উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়। যারা অসুস্থ নির্দিষ্ট তারিখে নিতে পারেন নি, তারাও পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে কার্ড গ্রহণ করতে পারবেন।

ভুলে ভরা স্মার্ট কাডের ব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. ইকবাল আহসান জানান, ভুল নিয়ে উদ্বিগ্ন হবার কোন কারণ নেই। কেননা প্রথম দফা স্মার্ট কার্ড উপজেলা ব্যাপী বিতরণ শেষ হলেই সংশোধনের কাজ শুরু হবে। কেন্দ্রিয় সার্ভার কেন্দ্রের মাধ্যমে সকল ভুলের সংশোধন করা হবে।

উল্লেখ্য, কুলাউড়া উপজেলায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে ৯ এপ্রিল থেকে। কুলাউড়া পৌরসভা থেকে বিতরণ শুরু করে পর্যায়ক্রমে উপজোলার ১৩টি ইউনিয়নে আগামী ০১ জুলাই পর্যন্ত কার্যক্রম চলবে। প্রথম পর্যায়ে ২ লাখ ২৪ হাজার ৫৯৪ টি স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে। ১২ এপ্রিল পর্যন্ত কুলাউড়া পৌরসভার ওয়ার্ড ভিত্তিক স্মার্ট কার্ড বিতরণ শেষ হয়েছে। তবে যারা বিশেষ অসুবিধায় সঠিক সময়ে নিতে পারেননি তাদের জন্য ১৩ এপ্রিল বিতরণ করা হবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *