এপ্রিল ১৬, ২০১৯
Home » জাতীয় » বড়লেখায় জমি বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় গাছ লুট : গ্রেফতার ১

বড়লেখায় জমি বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় গাছ লুট : গ্রেফতার ১

এইবেলা, বড়লেখা, ১৬ এপ্রিল ::

বড়লেখায় ভুমি বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় প্রবাসীর স্ত্রী রুশনা বেগম আগর-আতর ব্যবসায়ী তাজউদ্দিন শেখের টিলাবাড়ির সাড়ে ৪ লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে নিয়েছে। উদ্ধার কাজে পুলিশকে সহায়তা করায় স্থানীয় জয়াইদ উদ্দিনকে পিঠিয়ে আহত করা হয়। গাছ লুটের ঘটনায় পুলিশ সেলিম উদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে।

থানায় রুজু করা মামলার অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার সুজানগরের আগর-আতর ব্যবসায়ী তাজউদ্দিন শেখ প্রায় ৬ বছর পূর্বে কামিলপুর এলাকায় টিলা শ্রেণীর দুই বিঘা জমি ক্রয় করে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা রোপন করেন। গাছগুলো বড় হওয়ায় এবং ভুমিটি মূল্যবান হয়ে উঠলে এর ওপর লোলুপ দৃষ্ঠি পড়ে বড়থল গ্রামের প্রবাসী লাল মিয়ার স্ত্রী রুশনা বেগমের। তিনি তাজউদ্দিন শেখকে উক্ত টিলা বিক্রির প্রস্তার দেন। তিনি রাজি না হওয়ায় নানা উৎপাত শুরু করেন। ইতোপুর্বে মিথ্যা ঘর পুড়ানো মামলা দিয়েও হয়রানী করেন। শনিবার সকালে রুশনা বেগম দাঁড়িয়ে থেকে কয়েকজন ভাড়াটিয়া ও ৭-৮ জন কাঠ শ্রমিক দিয়ে জোরপুর্বক প্রায় সাড়ে ৪ লাখ টাকার আকাশী, আগর, মেনজিয়াম প্রজাতির গাছ কেটে নিয়ে যান। তাজউদ্দিন শেখ এ দিন প্রবাসীর স্ত্রী রুশনা বেগমকে প্রধান আসামী করে থানায় গাছ লুটের অভিযোগে মামলা করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে জোরপুর্বক কেটে নেয়া গাছের অংশবিশেষ উদ্ধার ও ২নং আসামী সেলিম উদ্দিনকে গ্রেফতার করে। পুলিশের উদ্ধার কাজে সহায়তা করায় ভুমি খেকো রুশনা বেগমের ভাড়াটিয়া আত্তর মিয়া, নাইম আহমদ গংদের নেতৃত্বে স্থানীয় জয়াইদ উদ্দিনকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করা হয়। অবস্থার অবনতি ঘটায় রোববার তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বড়লেখা থানার এসআই রিয়াজ উদ্দিন জানান, ব্যবসায়ীর টিলা ভুমির ব্যাপক গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার আসামী সেলিম উদ্দিনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পুলিশ কেটে নেয়া কিছু গাছ উদ্ধার করেছে। অবশিষ্ট গাছ উদ্ধার ও অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চালাচ্ছে।

মঙ্গলবার দুপুরে অভিযুক্ত প্রবাসীর স্ত্রী রুশনা বেগমের বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। মোবাইল নম্বর বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।#