- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

বড়লেখা পল্লীবিদ্যুতের প্রতারণা : ৯ ঘন্টার ঘোষণা দিয়ে ১৪ ঘন্টা বিদ্যুৎহীন

অতিষ্ট গ্রাহকদের বিদ্যুৎ অফিসে তালা

আব্দুর রব, বড়লেখা, ২৫ জুন ::

বড়লেখা পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি মেনটেইনেন্সের নামে শনিবার ও রোববার ৯ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়ে টানা ১৪-১৫ ঘন্টা বিদ্যুৎহীন রেখেছে বড়লেখা, জুড়ী ও কুলাউড়ার ৭০ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহককে। প্রচন্ড গরমের মধ্যে বিদ্যুৎ বন্ধ থাকায় গ্রাহকদের মারাত্মক দুর্ভোগ পোয়াতে হয়েছে। ২৩ জুন থেকে স্কুল ও মাদ্রাসার প্রথম সাময়িক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। বিদ্যুৎ না থাকায় কোমলমতি শিক্ষার্থীরা পড়েছে মহা বিপাকে। অত্যাধিক গরমে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার্থীরা অজ্ঞান হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে ঘোষণার চেয়েও ৫-৬ ঘন্টা বেশি সময় বিদ্যুৎ বন্ধ রাখায় ও আসার পর ঘন ঘন বিভ্রাটের কারণে অতিষ্ট গ্রাহকরা রোববার রাত ৯ টায় বড়লেখা পৌরশহরের পল্লীবিদ্যুতের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের কার্যালয় (যোনাল অফিস) প্রায় ৩ ঘন্টা তালাবদ্ধ করে রাখে। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

জানা গেছে, বড়লেখা পৌরশহরের পাখিয়ালায় অবস্থিত পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের কার্যালয় থেকে বড়লেখা, জুড়ী ও কুলাউড়া উপজেলার একাংশের প্রায় ৭০ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহকের বিদ্যুৎ সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। গত ১৬ জুন এ কার্যালয় থেকে ঘোষণা দেয়া হয় জরুরী লাইন স্থাপনের জন্য ২২, ২৩. ২৬, ২৭, ২৯ ও ৩০ জুন সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত উন্নয়ন কাজের জন্য তিন উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে। কিন্তু গত শনি ও রোববার সকাল সাড়ে ৬টায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে ৩টার পরিবর্তে সাড়ে চারটায় এবং পরদিন সকাল ৬টায় বন্ধ করে রাত ৯টায় বিদ্যুৎ চালু করা হয়। ঘোষণার বাহিরে প্রথম দিন দেড়ঘন্টা ও দ্বিতীয় দিন ৬ ঘন্টা বিলম্ব করে বিদ্যুৎ চালু করেও সরবরাহ স্বাভাবিক থাকেনি। এতে গ্রাহকদেও মধ্যে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করে। রোববার রাতে অতিষ্ঠ গ্রাহকরা বিদ্যুৎ অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

বিদ্যুৎ গ্রাহক ফয়জুর রহমান, রহিম বকত মুসা, লাল মিয়া প্রমূখ জানান, এই গরমে বিদ্যুৎ বন্ধ করে উন্নয়ন কাজ করা গ্রাহকের সাথে তামাশা ছাড়া আর কিছুই নয়। শীত মৌসুমে মেরামত করলে কি সমস্যা হতো। এছাড়া ঘোষণা দেয়ার পর আরো ৭-৮ ঘন্টা বিদ্যুৎ না দেয়া গ্রাহকের সাথে প্রতারণা ছাড়া কি হতে পারে।

পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম সুজিত কুমার বিশ্বাস জানান, পিডিবি’র লাইন উন্নয়ন কাজের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখা হচ্ছে। ঘোষিত সময়ের পরে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ না থাকার ব্যাপারে বলেন, লাইন চালুর পর একাথে লোড বেশি টানার কারণে জাম্পার পুড়ে যাওয়ায় এমনটি হচ্ছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *