- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

ঢাকা তাঁতীবাজার রথযাত্রা মহোৎসব, গীতাপাঠ ও সংগীতানুষ্ঠান

মনিকা সরকার, ঢাকা, ১৫ জুলাই ::

ঢাকার তাঁতীবাজার রথযাত্রা মহোৎসব উপলক্ষে ৯দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান সাজিয়েছেন মন্দির পরিচালনা পরিষদ। র্দীঘ ১১৮ বছর ধরে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে এই রথযাত্রা মহোৎসব এবং ১৯৯০ সাল হতে উক্ত মন্দিরে প্রতিষ্ঠা করেন গীতা শিক্ষালয় ”শ্রীশ্রী জগন্নাথ গুরুকুল বিদ্যালয়” । মন্দিরে স্বর্নের জগন্নাথ এবং জগন্নাথদেবের স্বর্ণের পাদুকা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে । যা দর্শন করার জন্য প্রতিদিন অনেক ভক্ত আসেন। নয় দিন ব্যাপী অনুষ্ঠেয় আয়োজনের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠানঃ- গীতাপাঠ, সংগীত, চিত্রাংকন, নৃত্য, উলুধ্বনি এবং শংঙ্খধ্বনি।

১ম দিন অনুষ্ঠিত হয় রথটান এবং ধর্মসভা। ২য় দিন অনুষ্ঠিত হয় গীতাপাঠ পাঠ প্রতিযোগিতা এতে বিচারক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেনন শ্রী বাবুল দাস, শ্রী ধ্রুব চৈতন্য, শ্রী কে.পি. চৌধুরী । প্রতিযোগিতায় ভক্ত মন্ডলীদের উদ্দেশ্য বলা হয় মানুষ যত বড় শিক্ষিত হউক না-কেন যতক্ষন পর্যন্ত ব্রহ্মবিদ্যা অর্জন না করবে, সে মুক্তি লাভ করবেনা। জড়-জাগতিক বিদ্যা দিয়ে ভগবানকে দর্শন করা যায় না। ভগবানকে দর্শন লাভ করতে হলে ব্রহ্মবিদ্যা অর্জন করতে হবে। মানুষ যদি গীতা পাঠ করে তবে তার মন ও আত্মা শুদ্ধ হবে, সে আর বিপথগামী হবে না এবং কোন অন্যায় অত্যাচারে লিপ্ত হবে না। মানুষের মধ্যে সুখ শান্তি ফিরে আসবে। পৃথিবীতে বয়ে আনবে অনাবিল শান্তি।

রথের ৮ম দিনে আয়োজন করা হয় গীতাপাঠ ও সংগীতানুষ্ঠান। উক্ত দিনে গীতা পাঠ করেন শ্রী ধ্রুব চৈতন্য এবং সংগীত পরিবেশন করেন শ্রী শংকর বালা- লীলা কৃর্তনীয়া, অগ্নিতা শিকদার মুগ্ধ-টিভি ও বেতার শিল্পী, শ্রী শুভ সাহা ও শ্রী গোপাল সরকার।

ছবি : এইবেলা

রথের ৯ম দিন উল্টা রথটান এবং রাতে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টান ছিল। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্টানে উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ শ্রী যুক্ত বাবুল দাস, শ্রী প্রদীপ দে খোকন- সহ-সভাপতি, শ্রী তারক বড়াল-সাধারণ সম্পাদক, শ্রীমতি সঞ্চিতা দাস-উৎসব সম্পাদিকা, শিউলী দে- সাংকৃতিক সম্পাদিকা শ্রীমতি চিনু রানী বিশ্বাস- সহ-সাংকৃতিক সম্পাদিকা বিজয়ীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেন। প্রতিদিন অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত সুন্দর ভাবে সঞ্চালন করেন অরুন সাহা ভানু- অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন শ্রীশ্রী জগন্নাথ জিঁউ ঠাকুর মন্দির পরিচালনার পরিষদের সভাপতি, সনাতনী চিন্তাবিদ, সনাতনী অলংকার শ্রী যুক্ত বাবুল দাস।

উল্লেখ্য যে, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কথা চিন্তা করে শ্রীশ্রী জগন্নাথ জিঁউ ঠাকুর মন্দির- ১৭, বাঁশী চন্দ্র সেন পোদ্দার ষ্ট্রীট(তাঁতী বাজার) ঢাকা -১১০০, বিভিন্ন সেবা মূলক কর্মকান্ড হাতে নিয়েছেন। এদের মধ্যে অন্যতম ”শ্রীশ্রী জগন্নাথ গুরুকুল বিদ্যালয়” যেখানে র্দীঘ ২৯ বছর ধরে উক্ত কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এই বিদ্যালয়ের মাধ্যমে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়া হয় যেমন, গীতা পাঠদান, সংগীত, চিত্রাংকন, নৃত্য, কম্পিউটার প্রশিক্ষন, প্রতি শ্রুক্রবার সকাল ৯.০০টিকা হতে কার্যক্রম শুরু হয়।

বর্তমানে গীতা শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা প্রকাশক, প্রচারক ও বাংলাদেশ লোকনাথ গীতা প্রচার সংঘের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  শ্রী ধ্রুব চৈতন্য। যেখানে প্রতি শুক্রবার ১০০জন ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত হয়। প্রত্যেকের জন্য গীতা শিক্ষা ব্যধ্যতামূলক করেছেন শ্রী বাবুল দাস।

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *