- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, শিক্ষাঙ্গন, স্থানীয়, স্লাইডার

নি:শর্ত ক্ষমা আর মুচলেখা দিয়ে পার পেলেন কুলাউড়ার ইভটিজার মামুন

এইবেলা, কুলাউড়া, ২৬ জুলাই ::

শিক্ষা অফিসারের উপস্থিতিতে ম্যানেজিং কমিটির সভায় নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে পার পেলেন ‘টোকেন পাঠিয়ে স্কুল ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব’ দেয়া বিতর্কিত ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মাজহারুল ইসলাম মামুন। সাথে পরবর্তীতে কিছু করবেন না বলেনও অঙ্গীকার নামায় স্বাক্ষর করেন।

মামুন কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের কানিহাটি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য। বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অফিসে ক্ষমা চাওয়ার এ ঘটনা ঘটে। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্কুলছাত্রীর অভিভাবকের দেয়া অভিযোগের প্রেক্ষিতে সদন্ত করতে গিয়ে সমঝোতা করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. আনোয়ার।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুল ছাত্রীকে ইভটিজিং করেন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মামুন। এমনকি গত ১০ জুলাই বুধবার ও ১১ জুলাই বৃহস্পতিবার পৃথকভাবে স্কুলছাত্রীর পথরোধ করে বলেন- ‘তুই স্কুলে আমার নামে যে, অভিযোগ দিয়েছিলি তা তুই তুলে নে’ আমি তোকে আমার খরচে মেট্রিক পাশ করাবো। তোর যা কিছু প্রয়োজন সবকিছু আমি তোকে দেব।’

এ ঘটনায় মেয়েটির মা ১৬ জুলাই বিকেলে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবরে পৃথক দু’টি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের পর থেকে ভয়ে গেল ৮দিন বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দেয় স্কুলছাত্রী।

স্কুলছাত্রীর অভিভাবক বলেন-‘আজ মামুন ক্ষমা চেয়েছেন আর মুচলেখাও দিয়েছেন। সেখানে শিক্ষা অফিসার ছিলেন।’

কানিহাটি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজল উদ্দিন আপোষ-মিমাংসার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মা. আনোয়ার জানান- তিনি তদন্ত রিপোর্ট দেবেনে কর্তৃপক্ষের কাছে। তবে সমঝোতার ব্যাপারটি এড়িয়ে যান তিনি।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *