- কুলাউড়া, জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

কুলাউড়ায় দোকান কর্মচারির রহস্যজনক মৃত্যু

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৩ আগস্ট ::

কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নে রনি শর্ম্মা (২৮) নামক এক দোকান কর্মচারিকে শুক্রবার ০২ আগস্ট রাতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রনির মাথার পিছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে এবং তা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় বলে জানিয়েছেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম। নিহত রনি টিলাগাঁও ইউনিয়নের বিজলী গ্রামের রণজিৎ শর্ম্মার বড় ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, রনি দীর্ঘ ৮ বছর ধরে টিলাগাঁও বাজারের স্টেশন রোডের ফরহাদুল হকের ফরহাদ ট্রেডার্স নামক হার্ডওয়্যার দোকানে কর্মচারির কাজ করে আসছিলেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার পার্শ্ববর্তী দোকানদাররা রনিকে বমি করতে দেখেন। পরে অজ্ঞান অবস্থায় দোকানে পড়ে থাকতে দেখে দোকানের মালিক ফরহাদুল হককে জানান। ফরহাদ ও রনির পিতা রণজিৎ শর্ম্মা রাত ৯টায় তাকে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

দোকানের মালিক ফরহাদুল হক জানান, তিনি শুক্রবার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় একটি বিয়ের দাওয়াতে ছিলেন। বিকেলে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা মোবাইল ফোনে রনি দোকানের ভেতর বমি করে অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছে বলে জানান। তিনি বিষয়টি রনির বাবাকে জানান। দোকান থেকে উদ্ধার করে রনিকে প্রথমে রবিরবাজারে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রনিকে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

দোকান মালিক আরও জানান, আমার হার্ডওয়্যারের দোকান। অজ্ঞান হয়ে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়েছে বলে মনে হচ্ছে।

রনির পিতা রণজিৎ শর্ম্মা জানান, রনি আমার বড় ছেলে। দীর্ঘদিন ধরে সে ওই দোকানে চাকরি করছে। খবর পেয়ে প্রথমে আমি দোকানে যাই। সেখানে গিয়ে জানতে পারি তাকে রবিরবাজার ডাক্তারের কাছে নেয়া হয়েছে। সেখানে গিয়ে দেখি কোন ডাক্তার চেম্বারে নেই। পরে তাকে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে আসি। তার মাথার পেছনে আঘাতের কারণে অনেক বড় ক্ষত দেখা যাচ্ছে। এজন্য বিষয়টি আমার কাছে অস্বাভাবিক লাগছে।

এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ রাত দশটার দিকে কুলাউড়া হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

কুলাউড়া থানার এসআই হারুন আল রশীদ জানান, লাশের সুরতহাল রিপোর্টে মৃত রনির মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। আপাতত অপমৃত্যু মামলা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *