- কুলাউড়া, ব্রেকিং নিউজ, স্থানীয়, স্লাইডার

কুলাউড়ায় চোখে মরিচের গুড়া ছিটিঁয়ে তিন ভাইকে পেটালো বখাটেরা

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৩ জুলাই ::

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রাতের বেলা বাজার থেকে ফেরার পথে আপন তিন ভাইয়ের চোখে মরিচের গুড়া ছিটিঁয়ে বেধড়ক পিটিঁয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেছে বখাটেরা। ৯-১০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল প্রায় ত্রিশ মিনিট ব্যাপী নির্জন রাস্তায় তাদেরকে নির্মমভাবে পিটিঁয়ে মৃত ভেবে একসময় সড়কের পাশে ধানের জমিতে ফেলে দিয়ে যায়।

এলাকাবাসী থানায় খবর দিলে প্রায় দু’ঘন্টা পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাঁদামাখা অবস্থায় তিনভাইকে উদ্ধার করে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায় পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার ৩০ জুলাই রাতে কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের টাট্টিউলী গ্রামে। ওইদিন রাতে আহতদের ভাই সোহেল মিয়া বাদী হয়ে ৭জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের টাট্টিউলী গ্রামের বাসিন্দা মৃত রেমান আলীর ছেলে আব্দুস সোবহানের পরিবারের সাথে একই গ্রামের মৃত ইদ্রিস আলীর পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছিলো।

এ ব্যাপারে কয়েক দফা সালিশ বৈঠক হলেও প্রতিপক্ষ আব্দুস সোবহান এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় বিষয়টির সুরাহা হয়নি। পরে হতদরিদ্র ইদ্রিস আলীর পরিবার এলাকার গনমান্য ব্যক্তিবর্গের কাছে সুষ্টু বিচারের দাবি করলে প্রতিপক্ষ ক্ষুব্দ হয়ে বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করতে থাকে। গত ৩০ জুলাই মঙ্গলবার বিকেলে ইদ্রিস আলীর ছেলে লাল মিয়া, সুবেদ মিয়া ও জুবেদ মিয়া স্থানীয় জুগি টিলা বাজারে যান।

রাত সাড়ে আটটায় বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে পথিমধ্যে পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা বখাটে আব্দুস সোবহান, তাঁর স্ত্রী ফাতেহা বেগম, তাঁর ভাই সুলেমান মিয়া ও ভাতিজা রহমান আলী, রিপন মিয়া, শিপন মিয়া, ভাড়াটে জাবিদ আলী তাদের পথরোধ করে মরিচের গুড়া চোখে ছিটিঁয়ে দিয়ে তিনভাইকে বেধড়ক পেটাতে থাকে আব্দুস সোবহান গংরা। প্রায় ৩০ মিনিট পেটানোর পর তিনভাই আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে গেলে তাদেরকে মৃতভেবে পার্শ^বর্তী ধানের জমিতে ফেলে রেখে চলে যায়। প্রায় ঘন্টাখানেক পর এলাকাবাসী তাদেরকে দেখে থানায় খবর দিলে পুলিশ প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে এনে ভর্তি করায়।

কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ রহমান আতিক ঘটনার শনিবার বিকেলে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, এ বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে। আসামীদের ধরতে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *