- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

মৌলভীবাজারে ৪২ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

এইবেলা, মৌলভীবাজার, ০৫ আগস্ট ::

মৌলভীবাজারে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গুতে জেলায় আক্রান্ত হয়েছে ৫ জন। গত একমাসে মোট ৪২ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত করা হয়েছে।

তবে অব্যাহত ভাবে ডেঙ্গু প্রতিরোধে মশক নিধন ও সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছে মৌলভীবাজার পৌরসভা। সদর হাসপাতাল পুরুষ ও নারী ২টি ওয়ার্ডে ডেঙ্গু কর্নার খোলা রয়েছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মৌলভীবাজার জেলায় সোমবার (৫ আগস্ট) পর্য়ন্ত ৪২ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ৮ জন এবং একটি প্রাইভেটে ক্লিনিকে ১ জন ভর্তি রয়েছেন। বাকি রোগীরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া ১৫ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেটে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে মশক নিধন ও সচেতনতা কর্মসুচির অংশ হিসেবে মৌলভীবাজার পৌরসভা সোমবার ০৫ আগস্ট সকালে শহরের বিভিন্ন পরিবহন স্ট্যান্ডে মশক নিধন স্প্রে বিতরণ করেছে।

এসময় পৌর মেয়র ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে চৌমোহনা মাইক্রোবাস স্ট্যান্ডে চালকদের মধ্যে মশক নিধন স্প্রে বিতরণ করেন পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ। এরপর শহরের কুসুমবাগসহ বিভিন্ন মাইক্রোবাস, বাস ও ট্রাক স্ট্যান্ডে প্রায় মশা চারশ প্রতিরোধক স্প্রে বিতরণ করা হয়। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহাবুব, সাধারণ সম্পাদক সালেহ এলাহী কুটি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম উমেদ আলী, ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহ অলিদুর রহমান এবং পরিবহন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

মেয়র ফজলুর রহমান আইনিউজকে বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও সচেতনতায় সর্বাত্মক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মৌলভীবাজার পৌরসভা। ফগার মেশিনে স্প্রে করা হচ্ছে পুরো শহর জুড়ে।
মৌলভীবাজার  হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু রোগী

সিভিল সার্জন ডা. শাহজাহান কবির চৌধুরী জানান, ডেঙ্গু মোকাবেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের সার্বিক প্রস্তুতি রয়েছে। মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ৮টি করে নারী-পুরুষের জন্য দুটি আলাদা ডেঙ্গু কর্নার খোলা আছে। হাসপাতালের কনসালটেন্ট ডা. স্বপ্ন কুমার সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড কাজ করছে।’ সিভিল সার্জন বলেন, ডেঙ্গু আক্রান্তদের অবস্থা ভালোর দিকে আছে’।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *