আগস্ট ২৩, ২০১৫
Home » কৃষি » ভারতীয় ঢলে সিলেটের কৃষকের মাথায় হাত

ভারতীয় ঢলে সিলেটের কৃষকের মাথায় হাত

এইবেলা, সিলেট, ২৩ আগস্ট  ::
ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে সিলেটের নিম্নাঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। এতে পায় ৯ হাজার হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ফসল হারিয়ে সিলেটের গোয়াইনঘাট, কোম্পানীগঞ্জ ও জৈন্তাপুর উপজেলার কৃষকদের মাথায় হাত পড়েছে। তবে গত দু’দিন ধরে উজানে ভারী বর্ষন না হওয়ায় বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। দ্রুত পানি নেমে গেলে তলিয়ে যাওয়া ফসল কিছুটা হলেও রক্ষা করা সম্ভব হবে বলে মনেকরছেন সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গত কয়েক দিন থেকে ভারতের মেঘালয় পাহাড়ে টানা বৃষ্টি হওয়ায় ঢল নামে। পাহাড়ী ঢলে কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাট উপজেলার বেশিভাগ এলাকা প্লাবিত হয়। এতে তিন উপজেলার নিচু এলাকার আউস ও আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়।

গোয়াইনঘাটের কৃষক আবুল কালাম জানান, ভারত থেকে নেমে আসা ঢলে তার আমন ধান ক্ষেত তলিয়ে গেছে। এছাড়া তার একটি বীজতলাও তলিয়ে গেছে বলে জানান।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ইমরুল কায়েস জানান, বন্যায় ৩৫০ হেক্টর আউস, আমন ও ৫০ হেক্টর বীজতলা পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।

গেয়াইনঘাটের কৃষি কর্মকর্তা মো. আনিসুজ্জামান জানান, বন্যার পানিতে ৪৮০ হেক্টর আউস, ৫০ হেক্টর বীজতলা ৩০ হেক্টর সবজি ক্ষেত তলিয়ে গেছে। এ বন্যা সপ্তাহ খানেক স্থায়ী হলে ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তবে সিলেট বিভাগীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা জানিয়েছে ভিন্ন কথা। তারা বলছেন, আর যদি বৃষ্টিপাত না হয় তাহলে তলিয়ে যাওয়া রোপা আমন ধানের তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

সিলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক খায়রুল বাশার জানান, এবার সিলেট জেলায় ৮২ হেক্টর রোপা আমন আবাদ করা হয়েছে। গত কয়েক দিনের বৃষ্টি ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ৯ হাজার হেক্টর রোপা আমন তালিয়ে গেছে। তবে বর্তমানে পাহাড়ি ঢল নেমে যাচ্ছে।

তিনি আরো জানান, দুই এক দিনের মধ্যে পানি নেমে গেলে রোপা আমনে কোন ক্ষতি হবে না। এছাড়াও কোন ক্ষতি হলে পুনরায় রোপা আমন আবাদ করার ব্যবস্থা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

রিপোর্ট-সিলেট প্রতিনিধি