- আলোচিত সংবাদ, কুলাউড়া, জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

কুলাউড়ায় ছাত্রী নির্যাতনকারী প্রধান শিক্ষক মন্তাজ আলী শ্রীঘরে

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৮ সেপ্টেম্বর ::

কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা ইউনিয়নের রাজনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে ৪র্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে নির্যাতনের পর অর্ধনগ্ন করে ছবি তোলার অভিযোগে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। পুলিশ প্রধান শিক্ষক মো. মন্তাজ আলীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। তাঁর ছেলে জাকারিয়া পলাতক।

নির্যাতিতা স্কুল ছাত্রীর ফুফু আমিনা আক্তার শনিবার ০৭ সেপ্টেম্বর রাত ১০টায় কুলাউড়া থানায় রাজনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মন্তাজ আলী ও তাঁর ছেলে মো. জাকারিয়াকে আসামী করে মামলা ( নং ১০) দায়ের করেন।

মামলার বাদী আমিনা আক্তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, গত ২০ জুলাই প্রধান শিক্ষক মন্তাজ আলী ফারজানাকে দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষার ফি প্রদানে দেরি করার কারণ জিজ্ঞাসা করতে ত৭ার ছেলে জাকারিয়াকে দিয়ে অফিস কক্ষে ডেকে নেন। এসয় প্রধান শিক্ষক অফিসের দরজা বন্ধ করে তাঁর বাড়ি থেকে আনা জালি বেত দিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করলে ছাত্রীর পিঠে ও হাতের বিভিন্ন জায়গা ফুলে যায়।

এরপর বুধবার ০৪ সেপ্টেম্বর স্কুল ছাত্রীর পিঠের জখম দেখার কথা বলে তার পরনের কামিজ খুলে স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করেন। এবং তার ছেলে জাকারিয়াকে দিয়ে কয়েকটি আপত্তিকর ছবি তুলেন। ছবি তোলার পর একথা কাউকে বললে ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার হুমকি প্রদান করেন।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আইয়ুর উদ্দিন জানান, একজন সহকারি শিক্ষা অফিসার ঘটনার তদন্ত করেছেন। তদন্ত প্রতিবেদন উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে প্রেরণ করা হয়েছে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান জানান, গণমাধ্যমে সংবাদ দেখেই পুলিশ বিষয়টি আলাদা করে ঘটনার তদন্ত করে। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়। নির্যাতিতা ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক মো. মন্তাজ আলী গ্রেফতার করা হয়। রোববার ০৮ সেপ্টেম্বর সকালে তাকে আদালতের মামধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। অপর আসামী মো. জাকারিয়াকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *