- বড়লেখা, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

বড়লেখায় জুয়ার আস্তানা গুড়িয়ে দিলেন থানার ওসি ও জনপ্রতিনিধিরা

এইবেলা, বড়লেখা, ১১ সেপ্টেম্বর ::

বড়লেখার ইটাউরী এলাকায় একটি স্থায়ী জুয়ার আস্তানা গুডিয়ে দেয়া হয়েছে। টিলার উপর টিনশেডের একটি ঘরে দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার জুয়াড়ীরা সেখানে নিয়মিত আসর বসাতো। মঙ্গলবার উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজ উদ্দিন ও ইউপি চেয়ারম্যান ময়নুল হকের নেতৃত্বে জুয়ার স্থায়ী এ আস্তানাটি ভেঙে উচ্ছেদ করা হয়। সেই সাথে জুয়ার আসর বসার অভিযোগে ইটাউরি বাজারের একটি চায়ের দোকানও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউপির ইটাউরি বাজারের অদূরে একটি টিলায় টিনসেট ঘর তৈরি করে দীর্ঘদিন থেকে জুয়া খেলে আসছিল। পাশাপাশি ওই বাজারের একটি দোকানেও চলত জুয়া খেলা। প্রতিদিনই বড়লেখা ও আশপাশের উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে জুয়াড়িরা এসে সেখানে জুয়া খেলতো। এতে এলাকার বিভিন্ন বয়সী লোকজন অংশ নিয়ে সর্বস্ব হারায়। জুয়া খেলার টাকা যোগাড় করতে তারা বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মকা-ে জড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়ভাবে খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিযান চালিয়ে টিলার উপরের দীর্ঘদিনের জুয়ার আস্থানাটি ভেঙে দেয়া হয়। এরপর জুয়া খেলার সরঞ্জামগুলোও ভেঙে ফেলা হয়। এছাড়া জুয়ার আসর বসার অভিযোগে বাজারে অভিযান চালিয়ে জবরুল নামের এক ব্যবসায়ীর চায়ের দোকানও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

উচ্ছেদকালে অন্যান্যের মধ্যে শাহবাজপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (পুলিশ পরিদর্শক) মোশাররফ হোসেন, বড়লেখা পৌরসভার কাউন্সিলর জেহীন সিদ্দিকী, ইউপি সদস্য সাজু আহমদ, শামীম আহমদ, সিরাজ উদ্দিন, কবির আহমদ, রশিদ আহমদ সুনাম, মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুমন আহমদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে বড়লেখা থানা পুলিশ জানিয়েছে, কান্দিগ্রামের কটন আলী, খালেদ আহমদ, মুজিব, জিতুল আহমদ, ইটাউরি গ্রামের রুবেল আহমদ, আলতাফ হোসেন ও কবিরা গ্রামের মাসুক আহমদ টিলায় ঘর তৈরি করে এই জুয়ার আসর পরিচালনা করতেন।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জুয়ার আসর বসার খবর পান। তথ্য যাচাই বাচাই করে জানতে পারেন প্রতিদিনই খেলা চলত। এরপর উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও স্থানীয় চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে অভিযান চালানো হয়। টিলার উপরে ঘর তৈরি করে খেলা চলত। সরঞ্জামসহ এটি ভেঙে দেয়া হয়। জুয়া খেলা হত এরকম একটি চায়ের দোকানও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।’

উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ জানান, ‘বড়লেখা উপজেলাকে মাদক এবং জুয়ামুক্ত করার অঙ্গিকার নিয়ে আমরা মাঠে নেমেছি। যতদিন পর্যন্ত মাদক এবং জুয়ামুক্ত হবে না ততদিন প্রশাসনকে সাথে নিয়ে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। এধরনের অপরাধ কর্মকান্ড দেখা গেলেই দ্রুত জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনকে অবহিত করার জন্য তিনি সাধারণ জনগণকে আহবান জানান।’

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *