- আলোচিত সংবাদ, ব্রেকিং নিউজ, রাজনগর, স্লাইডার

রাজনগরের গৃহবধু ৫ দিন থেকে লাপাত্তা!

এইবেলা, রাজনগর, ০৫ অক্টোবর ::

মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার বাসিন্দা গৃহবধু জয়শ্রী দেব নাথ (২৫) গত ৫দিন থেকে লাপাত্তা। তিনি সিলেট সরকারি কলেজ থেকে মাস্টার্স সার্টিফিকেট তোলার কথা বলে সিলেট যান। ০১ অক্টোবর মঙ্গলবার থেকে ০৫ অক্টোবর রোববার পর্যন্ত তার কোন হদিস মিলছে না।

এদিকে অনেক খোঁজাখুজি করেও কোন সন্ধান না পেয়ে ওই গৃহবধুর স্বামী উত্তম দেবনাথ নিখোঁজের পরদিন বুধবার রাজনগর থানায় সাধারণ ডায়রি করেছেন। নিখোঁজ জয়শ্রী দেবনাথ নবগঠিত ‘টেংরা আরজান খান আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে’র শিক্ষিকা। এদিকে ওই শিক্ষিকার নিখোঁজ হওয়া নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ বলছে, প্রেমঘটিত কারণেই তিনি নিখোঁজ হয়েছেন।

থানায় দায়েরকৃত জিডির সূত্রে জানা যায়, সিলেট কতোয়ালির কাজীটুলা এলাকার সুশীল দেবনাথের মেয়ে জয়শ্রী দেবনাথের বিয়ে হয় ২০১৭ সালের ২৮ জুলাই রাজনগর উপজেলার টেংরা ইউনিয়নের টেংরা গ্রামের রতন দেবনাথের ছেলে উত্তম দেবনাথের সঙ্গে। জয়শ্রী দেব নাথ সিলেট সরকারী মহিলা কলেজ থেকে ইকোনমিক্সে মাষ্টার্স শেষ করেন চলতি বছর। মাষ্টার্সের সার্টিফিকেট তুলতে গত মঙ্গলবার সকালে তিনি একাই সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের উদ্দেশ্যে বের হন। দুপুরের দিকে তার স্বামী উত্তম দেবনাথ ফোন করলে স্ত্রীর ফোন বন্ধ পান।

এদিকে জয়শ্রী দেব নাথের স্বামী উত্তম দেবনাথ তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করেন। কিন্তু কোথাও তার সন্ধান না পেয়ে তিনি বুধবার রাজনগর থানায় সাধারণ ডায়রি (নং-৭১, ২/১০/১৯) করেন। সাধারণ ডায়রির বিষয়টি তদন্ত করছেন রাজনগর উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু মুকছেদ পিপিএম। ওই গৃহবধু নিখোঁজের ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

গৃহবধুর স্বামী উত্তম দেবনাথ জানান, স্ত্রীর সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক ছিল। তাদের মাঝে কোন ঝামেলা নেই। এছাড়াও কারো সাথে তার স্ত্রীর কোন প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা নেই। তিনি মোবাইলেও কারো সাথে কথা বলতেন বলে তার কাছে ধরা পড়েনি।

রাজনরগর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু মুকছেদ পিপিএম জানান, সে সিলেট থেকে নিখোঁজ হয়েছে। আর অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে বিষয়টি প্রেমঘটিতই। তার ফোন কললিস্ট চাওয়া হয়েছে। প্রযুক্তির সহায়তা নেয়া হচ্ছে। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *