- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

ফাতেমা বেগমের আর কবে জোটবে ভাতা ও সরকারি ঘর?

এইবেলা, কুড়িগ্রাম, ১৫ অক্টোবর ::

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ফাতেমা বেগম (৬০) নামের এক স্বামী পরিত্যক্তা নারী দীর্ঘ দিন যাবত মানবেতর জীবন যাপন করছেন। তিনি উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়াডের বড়লই গ্রামের বাসিন্দা মৃত বাবু মিয়ার মেয়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় জরাজীর্ণ একটি একচালা ছোট্ট ঘরে ফাতেমা বেগমের বসবাস। সেখানেই দেখা মিললো বৃদ্ধপ্রায় ফাতেমার।ঘরের মাঝখানে বাঁধা একটি ছাগল, এক কোনে রান্নার চুলা,হাড়িপাতিল ও শোবার জন্য একটি চৌকি পাতানো।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে ফাতেমা বলেন, বাবা মোর কিছুই নাই,২৫ বছর আগে মোর বাচ্চা- কাচ্চা হয়না দেখিয়া মোর স্বামী মোক ছারি গেইছে।তখন থাকি মোর বাপের দেওয়া এই জাগাতে কোনমতে ঘর তুলিয়া আছোং।মানুষের বাড়িতে কামাই করিয়া কোন মতে খাযয়া না-খাযয়া দিন যায় মোর। ঘরটা দিন দিন ভাংগি যাবাইছে। কেমন করি যে থাকিম।ঝরি- বাতাস হইলে মোর ঘর ওশসানি পানিতে ভিজি যায়।বিছনাতে শুতপার পাংনা বাহে আদি নেওয়া অমাত ছাগলটাকে নিয়ে এক কোনাতে বসি থাকং।মোর কষ্ট কাইয়ো দেখে না বাহে।

তিনি আরো বলেন,এতদিন মোর শরীল ভাল আছিলো মানুষের বাড়িতে কাজ করিছোং,অ্যালা তো মোর শরীলে চলে না।কেমন করি ঘরটা ঠিক করিম বাবা।

এলাকাবাসীরা জানায় অনেক দিন থেকে এই মহিলা খুব কস্টে দিন পার করলেও অদৃশ্য কারনেই তিনি ভাতা ও সরকারি ঘর পাচ্ছেন না।তার চেয়ে হতদরিদ্র এ এলাকায় আর কেউ নেই।ফাতেমা বেগম ভাতা ও সরকারি ঘর পাওয়ার যোগ্য।

৭নং ওয়াডের ইউ পি সদস্য জনাব খৈমুদ্দিন চৌধুরী ফাতেমা বেগমের মানবেতর জীবন যাপনের সত্যতা স্বীকার করেন এবং যত তারাতারি সম্ভব তার দুর্দশার দুর করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবেন বলে জানান। ফাতেমা বেগমের জাতীয় পরিচয় পত্র অনুযায়ী বয়স ৪৯ হলেও তার চেহারাদৃষ্টে বয়স ষাটোর্ধ বলে মনে হয়।

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *