- কুলাউড়া, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

কুলাউড়ার এক আতঙ্কিত জনপদের নাম ভাটেরা

এইবেলা, কুলাউড়া, ০৭ নভেম্বর ::

ডাকাত আতঙ্কে চলছে রাত জেগে পাহারা। দেশজুড়ে আলোচিত স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনা। শুধু তাই নয় এক আতঙ্কিত জনপদের নাম কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়ন। খুন, অপহরণ, ধর্ষণ, চুরি, ডাকাতি যেখানে নিত্যকার ঘটনা। ফলে ভাটেরা ইউনিয়নের প্রবাসী বাসিন্দা যারা ইউরোপ আমেরিকায় বসবাস করেন তারাও নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় নিজ জন্মমাটিতে ফিরতে সাহস করেন না। শান্তি ফিরিয়ে আনতে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হলেও জনমনে স্বস্তি ফিরছে না।

ভাটেরা ইউনিয়ন ছিলো কুলাউড়া উপজেলার ১৭তম ইউনিয়নে। ২০০৪ সালে জুড়ী উপজেলায় ৪টি ইউনিয়ন চলে যাওয়ায় বর্তমানে ৩নং ভাটেরা ইউনিয়ন হয়েছে। বর্তমানে এর জনসংখ্যা ২৬ হাজার ৩ শতাধিক। ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৩ সালে ইউনিয়ন হওয়ার পর ছিলো একটি শান্তির জনপদ। কিন্তু কালের পরিক্রমায় ইউনিয়নটি সবচেয়ে বেশি অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত হয়।

ভাটেরা রাবার বাগানের কষ ও গাছ চুরি করতে করতে সাহসীরা একসময় পরিণত হয় ডাকাতে। শুধু ডাকাত নয় ডাকাত সর্দারও হয়ে উঠেন। ভয়ঙ্কর অনেক ডাকাতির ঘটনাও সংঘটিত হয়েছে ভাটেরাতে। ২০১৪ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয় ডাকাত সর্দার বাবুল (৩০)। সে ইসলামনগর গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে। বন্দুক যুদ্ধে বাবুল মারা যাবার পর তার সহযোগি রুবেল পাড়ি জমায় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আর অপর সহযোগি রয়েছে চট্রগ্রামে। ২০১৪ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ডাকাত বাবুল ও রুবেলের বাড়িতে হামলা চালায় এলাকাবাসী। তাদের বাড়িঘর ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্দ মানুষ। ভাটেরায় ডাকাতি কিংবা দু:সাহসিক চুরি কোনটাই বন্ধ হয়নি।

সর্বশেষ গত ৩০ জুলাই সুপ্রীম কোর্টের সাবেক সহকারী এটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট খালেদ আহমদের ভাটেরার গ্রামের বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এটা ছিলো ওই বাড়িতে ২য দফা ডাকাতির ঘটনায়। এই ডাকাতির ঘটনায় বর্তমানে জেলহাজতে আছে খারপাড়া গ্রামের মৃত ইউছুফ আলীর ওরফে সাদ্দামের ছেলে ডাকাত কামরুল। ইউছুফ আলী ওরফে প্রকাশ সাদ্দাম নিজেও ওইপেশায় জড়িত ছিলেন বলেন এলাকাবাসী জানান। তার ১১ ছেলে। কিন্তু তাদের পেশা কি? মুখ খুলতে নারাজ স্থানীয়রা। তাদের মতে, পুলিশই ভালো বলতে পারবে। সবার মাঝেই চাপা আতঙ্ক। গত ১৪ অক্টোবর রাতে খলিলুল্লাহ একাডেমি ও হোসেনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দু:সাহসিক চুরি সংঘটিত হয়। ১৫ অক্টোবর বড়গাঁও গ্রামের আলাল মিয়া ৩টি গরু চুরি হয়। কিন্তু এসব ঘটনার কোন প্রতিকার কিংবা বিচার নেই। অথচ চুরির সাথে কারা জড়িত স্থানীয় প্রশাসন নাকি এসব বিষয়ে অবগত আছে। ডাকাতি পেশার বিখ্যাত লোক এখন পরিষদের চেয়ারে আসীন। ওই ব্যক্তি যদি সত্যি পেশা বদল করেন, তাতে নিরাপদ হবে ওই এলাকার জনগন।

২০১২ সালে ইসলামপুর গ্রামে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজাম মিয়ার পরিবার ৫ মাস বয়সী শিশু কন্যাকে নিজেরা জবাই করে। ২০১৩ সালে মাইজগাঁও গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে প্রবাসী আব্দুল আজিজ (২৪) কে হত্যা করে ইট বেঁধে হাকালুকি হাওরের পানিতে ফেলে দেয়া হয়। এসব নৃশংস হত্যাকান্ডগুলো ভাটেরা ইউনিয়নের ইতিহাসে কলঙ্কিত অধ্যায় হয়ে আছে।

যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত প্রবাসীরা ভাটেরার এসব খবর জানতে পেরে উদ্বেগ উৎকন্ঠা প্রকাশ করেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এসব প্রবাসীরা জানান, দেশে যারা বসবাস করছেন, যেখানে তাদের জানমালের কোন নিরাপত্তা নেই, সেখানে পরিবার পরিজন নিয়ে কিভাবে দেশে আসবো?

ভাটেরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে থাকায় তাঁর বক্তব্য সংযুক্ত করা যায়নি।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান, ভাটেরার সার্বিক পরিস্থিতি উপলব্ধি করতে পেরে সেখানে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। অচিরেই সবকিছু স্বাভাবিক হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *