- কুলাউড়া, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

কুলাউড়া সড়ক পাকাকরণ কাজে অনিয়ম : প্রতিবাদে কাজ বন্ধ করে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা

এইবেলা, কুলাউড়া, ১৪ নভেম্বর ::

কুলাউড়া উপজেলার পুশাইনগর হতে ভুকশিমইল পর্যন্ত রাস্তার কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অনিয়মের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাস্তার কাজ বন্ধ করে দেয়। পরে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও উপজেলা প্রকৌশলী ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ সঠিকভাবে সম্পাদনের প্রতিশ্রুতি দিলে বিক্ষুব্ধ মানুষ শান্ত হয় এবং কাজ চালিয়ে যাওয়ার সম্মতি দেয়।

স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেন, কুলাউড়া উপজেলার পুশাইনগর বাজার থেকে ভুকশিমইল পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার রাস্তার মেরামত বাবত ১০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ। কাজ বাস্তবায়নের দায়িত্ব পান মুহিবুর রহামন কোকিল কন্সট্রাকশন। কাজটি বাস্তবায়নে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ব্যাপক অনিয়ম শুরু করে। বৃহস্পতিবার গৌরীশঙ্কর এলাকায় কাজে অনিয়ম দেখে সকাল ১১ টায় কাজ বন্ধ করে দেয়। প্রায় ২ ঘন্টা কাজ বন্ধ রাখার পর কুলাউড়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. ইশতিয়াক ও ঠিকাদার মো. মুহিবুর রহমান কোকিল ঘটনাস্থলে যান। এতে বিক্ষুব্ধ জনতা তাদেরকে ঘেরাও করে রাখে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রাস্তা কার্পেটিং করার পর হাত দিয়ে তুরা যায় কারো পিচ আবার পা দিয়ে খোঁচা দিলে তা উঠে যায়। এত নি¤œমানের কাজ কোন রাস্তায় হয়নি। গাড়ী চলাচল করলেই পিচ উঠে যাবে। দায়সারা গোচের কাজ। কাজ চলাকালে ঠিকাদের কেউ বা ইঞ্জিনিয়ার অফিসের কোন লোকজন উপস্থিত থাকে না। ফলে শ্রমিকরা তাদের ইচ্ছামত কাজ করে। কোথায়ও আধা ইঞ্চি আবার কোথায় এরচেয়ে কম পিচ ঢালাই করা হচ্ছে।

ঠিকাদার মো. মুহিবুর রহমান কোকিল জানান, রাস্তার কাজ শেষ হয়নি। প্রাইম কোট করা হয়েছে মাত্র। কাজ শেষ হরে এই কাজ অনেক মজবুত হবে। যে কাজ মেনুয়েলি হওয়ার কথা সেই কাজ মেশিনে হচ্ছে। টকেনিক্যাল কোন সমস্যা নেই। স্থানীয় লোকজন ভুল বুঝে কাজে বাঁধা দিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। পরে তারা বুঝে কাজ করার সম্মতি দিয়েছে। এই ভুল বুঝাবুঝির কারণে কিছু সময় কাজ বন্ধ ছিলো।

উপজেলা প্রকৌশলী মু. ইসতিয়াক হাসান জানান, নিয়মতান্ত্রিকভাবে কাজ হচ্ছে। এলাকাবাসী মনে করেছে ৩ ইঞ্চি কাজ হবার কথা। ভুল বুঝাবুঝির কারণে সাময়িক সমস্যা হয়েছে। পরে ঠিকাদারের উপস্থিতিতে এলাকাবাসীকে কাজের শিডিউলের (ইস্টিমিট) কপি দেখানো এবং বুঝানোর পর ফের কাজ শুরু হয়। বিক্ষুব্ধ লোকজন রোলারের ড্রাইভারকে মারধর করায় কাজ কিছুক্ষণ বন্ধ ছিলো।

কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ হোসেন জানান, কাজ আপাতত বন্ধ রয়েছে। তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *