- কুলাউড়া, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্লাইডার

কুলাউড়ায় চাপে পড়ে কাঠ জব্দ করলেন বিট অফিসার!

এইবেলা, কুলাউড়া, ২১ জানুয়ারি ::

কুলাউড়া রেঞ্জের বরমচাল বনাঞ্চল থেকে দীর্ঘ দিন ধরে কাঠ পাচার হচ্ছে। স্থানীয় লোকজন একাধিকবার বিষয়টি বরমচাল বন বিটের কর্মকর্তা আহমদ আলীকে অবহিত করার পরও তিনি কর্ণপাত করেননি। বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে নড়েচড়ে বসে বন বিভাগ। বিষয়টি নজরকাড়ে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের। শেষতক অনেকটা চাপে পড়ে মঙ্গলবার বিকালে গিয়ে প্রায় ৭শ ঘনফুট কাঠ জব্দ করে বন বিভাগের লোকজন।

জানা যায়, বরমচাল ইউনিয়নের সিঙ্গুর এলাকা থেকে গত ২-৩ বছর থেকে ধাপে ধাপে গাছ নিধন চলছে। গত দু-সপ্তাহ থেকে ৮-১০ জন লোক মিলে গাছ কাটা শুরু করেন। আর এই কাটা গাছগুলো ক্রয় করছেন ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল আহাদ ও বরমচাল ইউনিয়নের সিঙ্গুর গ্রামের আব্দুল হাসিম। বিষয়টি স্থানীয় লোকজন বন কর্মকর্তা ও রেঞ্জ কর্মকর্তাকে অবহিত করলেও তারা এবিষয়ে কোন কর্ণপাত করেননি। বরমচাল বিটের কর্মকর্তা আহমদ আলী প্রথমে গাছ কাটার বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে বলেন, খবর পেয়ে গাছ জব্দ করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বন কর্মকর্তা আহমদ আলীর যোগসাজশেই গত কয়েক বছর থেকে এই বনবিট থেকে নানা প্রজাতির গাছ কেটে বিক্রি করা হচ্ছে। এনিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। বিষয়টি কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরীর নজরে আসলে
মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারি দুপুরে কুলাউড়া রেঞ্জারকে নিয়ে সরেজমিন স্পটে যান। সেখানে গেলে স্থানীয় বিট কর্মকর্তার অবহেলার বিষয়টি দৃশ্যমান হয়। এসময় ইউএনও কাঠ জব্দ করে পাচারকারীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা এবং বরমচাল বিট অফিসার আহমদ আলীকে শোকজ করার নির্দেশ দেন।

এব্যপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী জানান, বনাঞ্চলের গাছ পাচারের খবর পেয়ে কুলাউড়া রেঞ্জ কর্মকর্তাকে নিয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করেছি। ভূমিটি খাসের হলেও গাছ পাচারের বিষয়ে বন বিভাগের দায় এড়ানোর কোন সুযোগ নেই। কিন্তু স্থানীয় বিট কর্মকর্তার অবহেলার কারনে এমনটি হয়েছে। ওই বিট কর্মকর্তাকে শোকজ করার জন্য এবং কাঠ পাচারকারীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়েরের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *