- বড়লেখা, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

বড়লেখায় নোটিশ ছাড়া স্থাপনা উচ্ছেদ : এলাকায় ক্ষোভ-অসন্তোষ

আব্দুর রব, বড়লেখা, ১৪ ফেব্রুয়ারি  ::

বড়লেখায় ধামাই নদী খননের নামে পানি উন্নয়ন বোর্ড ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। বিনা নোটিশে নদী তীরবর্তী বাসিন্দাদের নানা স্থাপনা উচ্ছেদ করা নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চলছে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ। স্থানীয়দের দাবি অনেকের ব্যক্তিগত জায়গার ওপর স্থাপনাগুলো ছিল। হঠাৎ উচ্ছেদের নামে নিরীহ মানুষের স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়ার এ অভিযানকে অনেকে পাউবি’র সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বলে মন্তব্য করছেন।

জানা গেছে, উপজেলার ধামাই নদীর খনন কাজ বাস্তবায়ন করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তাদের ঠিকাদারের বিরুদ্ধে নদী খননে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠে। নদী তীরের ভুমি মালিকদের কোথাও আংশিক আবার কোথাও বেশি পরিমান মাটি কাটতে থাকে। অনেকের ব্যক্তিগত ভুমি কেটে নিতে কিংবা ভরাট করলে বাধা দিতে থাকেন। পাউবি বৃহস্পতিবার দুপুরে ধামাই নদীর সদর ইউনিয়নের সোনাতুলা ব্রিজ এলাকা থেকে সুজানগর ইউনিয়নের সীমানা পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসনকে সাথে নিয়ে নদী তীরবর্তী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালায়। এসময় অর্ধশতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করে উপজেলা প্রশাসন। প্রশাসনের দাবি নদী পাড়ের স্থাপনাগুলো সরকারি জায়গার ওপর ছিল।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার রাতেই নদী পাড়ের স্থাপনা উচ্ছেদের ঘটনায় এলাকার বিক্ষুব্ধ লোকজন নদী খনন কাজে ব্যবহৃত এক্সকাভেটর আটকে রাখেন। এ ঘটনার খবর পেয়ে শুক্রবার দুপুরে ঘটনাস্থলে যান উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ ও ভাইস চেয়ারম্যান তাজ উদ্দিন। তারা ক্ষতিগ্রস্থ বিক্ষুব্ধ লোকজনকে সান্তনা দেন। এছাড়া লোকজনের সাথে কথা বলে খননযন্ত্র (এক্সকাভেটর) চাবি সংশ্লিষ্ট ম্যানেজারের কাছে বুঝিয়ে দেন। তবে ঘটনার পর থেকে নদী খনন কাজ বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সদর ইউনিয়নের ধামাই নদীর পাড়ে স্থানীয় লোকজন দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন স্থাপনা গড়ে তুলেন। এরমধ্যে রয়েছে দোকান ঘর, শৌচাগার, বাড়ির সীমানা প্রাচীর, ঘরের একাংশ। স্থাপনাগুলো অবৈধ ঘোষণা দিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুর দুটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও পুলিশ যৌথভাবে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে। এসময় অর্ধশতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। ধামাই নদীর সদর ইউনিয়নের সোনাতুলা ব্রিজ থেকে সুজানগর ইউনিয়নের সীমানা পর্যন্ত অভিযান চালানো হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন ইউএনও মো. শামীম আল ইমরান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন প্রমুখ।

এইবেলা/এআর/জেএইচজে

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *