- কুলাউড়া, ব্রেকিং নিউজ, স্লাইডার

কুলাউড়ায় করোনাভাইরাস দুর্যোগে ত্রাণ বিতরণে পরামর্শ সভা

এইবেলা, কুলাউড়া, ০১ এপ্রিল ::

গোটা বিশ্ব যখন মহামারি করোনা ভাইরাস আতঙ্কে নীরব ও নিস্তব্ধ। যার প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশেও। বর্তমান সময়ে দেশ আজ কঠিন দূর্যোগের মুখোমুখি হয়েছে। সারাদেশের মানুষ যখন বাড়িতে লকডাউন আছে বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। এতে করে বন্ধ হয়ে গেছে খেটে খাওয়া মানুষদের জীবন সংগ্রামের পথচলা। ঠিক তেমনি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায়ও শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট।

স্বল্প আয়ের মানুষরা আজ নিজ ঘরে গৃহবন্দী রয়েছে। সেই সব মানুষদের পাশে দাঁড়াতে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলার পরিষদ সর্বাত্মক প্রাণপণ চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে সরকারি বরাদ্দ থেকে ১৭ মেট্রিক টন চাল ও ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে উপজেলার সবক’টি ইউনিয়নের ১৭০০ কর্মহীন মানুষের মধ্যে। নতুন করে আরো ১৮০০ কর্মহীন মানুষের জন্য ১৮ মেট্রিক টন চাল ও ৫০ হাজার টাকা সহায়তা এসেছে উপজেলা প্রশাসনের কাছে। পাশাপাশি প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ব্যক্তি উদ্যোগে অনেকেই ত্রাণ বিরতণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

এমনও দেখা গেছে, এক পরিবার ঘুরেফিরে ৪-৫ বার করে ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছে যারফলে অনেক কর্মহীন অনেক মানুষ এই খাদ্য সহায়তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এমতাবস্থায় দ্বৈততা পরিহার করে অগ্রাধিকার তালিকা তৈরি করে ত্রাণ বিতরণ করার আহবান জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক অগ্রাধিকার তালিকা প্রস্তুতকরণে বুধবার ০১ এপ্রিল সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে কুলাউড়া পৌরসভার মেয়র ও সকল কাউন্সিলারদের সাথে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কুলাউড়া পৌর মেয়র মো. শফি আলম ইউনুছ, কুলাউড়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সৌম্য প্রদীপ ভট্টাচার্য সজল, ইয়াকুব তাজুল মহিলা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এমদাদুল হক ভুট্টো, নবীন চন্দ্র সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আমির হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. শিমুল আলী, কুলাউড়া পৌরসভার সচিব শরদিন্দু রায়সহ পৌরসভার সকল কাউন্সিলারবৃন্দ।

পরামর্শসভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে শুক্রবার থেকে কুলাউড়া পৌরশহরে ২৫০০ কর্মহীন মানুষদের মধ্যে ( ৫ কেজি চাল, আধা কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি লবন, ৫’শ গ্রাম তেল) সামগ্রী বিতরণ করা হবে। এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এদিকে ২৯ মার্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত একটি পত্রের মাধ্যমে জানানো হয়, কুলাউড়া পৌরসভাসহ উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে কৃষি শ্রমিকসহ অন্যান্য শ্রমজীবি উপকারভোগীদের তালিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রস্তুত করে খাদ্য সহায়তা প্রদান করতে হবে। স্থানীয় পর্যায়ে বিত্তশালী ব্যক্তি, সংগঠন, এনজিও কোন খাদ্য সহায়তা প্রদান করলে তা স্থানীয় প্রশাসনের প্রস্তুতকৃত তালিকার সাথে সমন্বয় করতে হবে। এমনভাবে বিতরণ নিশ্চিত করতে হবে যাতে দ্বৈততা পরিহার করা যায় এবং কোন উপকারভোগী যেন বাদ না পড়ে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক অগ্রাধিকার তালিকা তৈরি করে ত্রাণ বিতরণে যে মানুষ কর্মহীন (ভিক্ষুক, ভবঘুরে, দিনমজুর, রিকশা চালক, ভ্যানগাড়ী চালক, পরিবহন শ্রমিক, রেষ্টুরেন্ট শ্রমিক, ফেরিওয়ালা, চায়ের দোকানদার) হয়ে খাদ্য সমস্যায় আছে তাদের তালিকা প্রস্তুত করে খাদ্য সহায়তা প্রদান করার জন্য পৌরসভার মেয়র, কাউন্সিলর, প্রতিটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড মেম্বার, বিত্তশালী, সংগঠন ও এনজিও কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সকলের প্রস্তুতকৃত তালিকা উপজেলা প্রশাসনের কাছে পাঠানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে। সামগ্রিকভাবে সমন্বিত কার্যক্রম এ মুহুর্তে অত্যন্ত জরুরী হয়ে পড়েছে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *