সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৫
Home » অর্থ ও বাণিজ্য » ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতের উন্নয়ন ছাড়া দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়-সুকোমল সিংহ চৌধুরী

ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতের উন্নয়ন ছাড়া দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়-সুকোমল সিংহ চৌধুরী

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ১৮ সেপ্টেম্বর:: বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ, বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের (বিআইবিএম) এস.এম.ই এর প্রধান উপদেষ্টা সুকোমল সিংহ চৌধুরী বলেছেন, দেশের সার্বিক উন্নয়নের কাজে বেশি বেশি করে নারী উদ্যোক্তাদের অংশ গ্রহন নিশ্চিত করতে হবে। 03 copy

উদ্যোক্তাদের অভাবে ও অনাগ্রহ শিল্পের বিকাশ না ঘটে ব্যাংকে অলস টাকা পড়ে থাকলে দেশ এগিয়ে যাবে কিভাবে। এজন্য দেশের প্রতিটি ব্যাংকের প্রধান কাজই হবে শিল্প উদ্যোক্তাদের খুজে বের করে তাদের বিনিয়োগে আগ্রহী করে তোলা। যত দ্রুত সাধারণ মানুষের কাছে আর্থিক সেবা পৌছে দেয়া যাবে তত দ্রুত দেশের সার্বিক অবস্থার পরিবর্তন হবে। মনে রাখতে হবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতের উন্নয়ন ছাড়া দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয়।

দিন বদলের দিচ্ছে ডাক দেশের উন্নয়নে নারী-পুরুষ মেলাও হাত। নারী উদ্যোক্তাদের শিল্পের বিকাশ ঘটাতে বাংলাদেশ ব্যাংক এস.এম.ই.সুবিধা স্কিম চালু করেছে। নারী উদ্যোক্তারা ব্যাংকগুলোর কাছে আর্থিক সুবিধা বঞ্চিত। এ জন্য তাদের ভাগ্যান্নয়নে এস.এম.ই.স্কিম পদ্ধতি বিরল দৃষ্টান্ত।

জনকল্যাণমুখি কাজে ব্যাংকগুলোকে সব সময় সহায়তার হাত বাড়িয়ে উদ্যোক্তাদের পাশে থাকতে হবে। দেশের আর্থিক সুবিধা বঞ্চিত মানুষের কল্যাণে যে ব্যাংক যত কাজ করবে সে ব্যাংক তত উন্নতি করবে। দেশের প্রতিটি ব্যাংক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণে যুক্ত রয়েছে। এস.এম.ই সম্পর্কে যারা জানতে আগ্রহী তাদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। ব্যাংকের নীতিমালা অনুযায়ী তাদের কাজের পরিধি বাড়াতে হবে। মনে রাখতে হবে দেশের উন্নয়নে এক একটি ব্যাংক কর্মকর্তা এক একটি সুনিয়ন্ত্রীত সংগঠক।

বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প উদ্যোক্তা উন্নয়ন পরিষদের আয়োজনে এবং ব্যাংক অফিসার্স ফোরাম, কমলগঞ্জ এর সহযোগিতায় স্থানীয় ইসলাম কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ব্কব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প উদ্যোক্তা পরিষদের সভাপতি, লেখক-গবেষক আহমদ সিরাজের সভাপতিত্বে ও ব্যাংক অফিসার্স ফোরাম, কমলগঞ্জ এর সভাপতি মো. সালাহ উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান।

বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেট এর ডেপুটি জনারেল ম্যানেজার শাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া, বিসিক, মৌলভীবাজার এর উপ-পরিচালক এ. এইচ. হামিদুল হক, আই এম এসএমই এর বাংলাদেশস্থ সভাপতি সৈয়দ আহমদ কিরণ, সোনালী ব্যাংকের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক রণধীর দাশ। 01 copy

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ই-সেবী কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন, সাপ্তাহিক কমলগঞ্জ সংবাদ সম্পাদক মো. সানোয়ার হোসেন, নারী উদ্যোক্তা বিলকিস বেগম, হোসনে আরা বেগম, ব্যাংক অফিসার্স ফোরাম, কমলগঞ্জ এর সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় কুমার দেব, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প উদ্যোক্তা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ মাহমুদ বাবুল প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসীন আলীর মৃত্যুতে ১ মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয়।

মত বিনিময় সভা শেষে সোনালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক ও অগ্রণী ব্যাংকের উদ্যোগে ৯ জন উদ্যোক্তাকে ৪ লক্ষ ৫ হাজার টাকা এসএমই ঋণ বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে এসএমই খাতে অসামান্য অবদান রাখায় বাংলাদেশ ব্যাংক প্রধান কার্যালয়ের বিআইবিএম ও বিবি এর এস.এম.ই এর প্রধান উপদেষ্টা সুকোমল সিংহ চৌধুরী-কে ব্যাংক অফিসার্স ফোরাম, কমলগঞ্জ এর পক্ষ থেকে ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের (বিআইবিএম) এস.এম.ই এর প্রধান উপদেষ্টা সুকোমল সিংহ চৌধুরী আরো বলেন, বৈচিত্রময় সংস্কৃতির ধারক-বাহক ও অপার সম্ভাবনাময় উপজেলা হচ্ছে কমলগঞ্জ। এখানে বাঁশ-বেত, মধু, ফুল-শলা ঝাড়, মৃৎ ও তাঁত শিল্প প্রভৃতি নারী উদ্যোক্তারা তাদের কর্মকান্ডে কমলগঞ্জকে অনেক দুর এগিয়ে নিয়েছে।

ইতিমধ্যে তারা ব্যাংক ঋণ নিয়ে তাদের স্ব স্ব পেশাকে কাজে লাগিয়ে স্বাবলম্বি করে তুলেছেন। দৃঢ় মনোবল ও পরিকল্পনা নিয়ে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে যেতে হবে। সব উদ্যোক্তা এক প্লাটফর্মে এসে শিল্পের উন্নয়নে কাজ করতে হবে। কোন প্রকার ঋণ খেলাপি করবেন না। বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহযোগিতা করা হবে।

অনুষ্ঠানে কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের দুই শতাধিক নারী উদ্যোক্তা উপস্থিত ছিলেন। উদ্যোক্তাগণ তাদের নানা ধরণের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন।

রিপোর্ট-প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ